ভ্যাকসিন নিয়ে আন্তর্জাতিক রাজনীতি ও অর্থনীতির খেলা!

Sun, Apr 11, 2021 1:03 PM

ভ্যাকসিন নিয়ে আন্তর্জাতিক রাজনীতি ও অর্থনীতির খেলা!

সৈয়দ ফজলে রউফ: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গত কয়েকদিন যাবৎ একটা তথ্য চোখে পরছে তাহলো সাউথ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে এস্ট্রাজেনেকা/কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন অকার্যকরী এবং ফাইজার-বায়োএনটেকের করোনা ভ্যাকসিন সাউথ আফ্রিকা‘র ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে সম্পুর্ণ কার্যকরী।

যদিও মার্চ ২০২১ এ প্রকাশিত একাধিক গবেষণাপত্রে দেখানো হয়েছে সাউথ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে উভয় ভ্যাকসিনের কার্যকারিতাই হ্রাস পায় । আবার এপ্রিল, ২০২১ সালে প্রকাশিত গবেষণাপত্রে দেখানো হয়েছে সাউথ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে ফাইজার ও মডার্নার টীকা কার্যকরী । সেই গবেষনায় আবার এস্ট্রাজেনেকাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি ।

বাস্তবতা হলো, ব্রিটেন-সুইডেনের এস্ট্রাজেনেকা ও জার্মান-ম্যারিকান ফাইজার ভ্যাকসিনের শীতল দ্বন্দ্বে অন্যের ভ্যাকসিনকে ছোট দেখানো ও নিজের ভ্যাকসিনের ত্রুটি ঢেকে রাখার নোংরা আন্তর্জাতিক রাজনীতি ও অর্থনীতি‘র খেলায় আল্টিমেটলি ক্ষতিগ্রস্ত হবে দ্রুত সময়ে গ্লোবাল ভ্যাকসিনেশন ও প্যান্ডেমিককে শেষ করা । দু:খজনক হলেও সত্য দেশী-বিদেশী বিজ্ঞানীরাও যোগ দিচ্ছেন এই প্রোপাগান্ডা ছড়াতে।

সত্যটা হলো, এখন পর্যন্ত দেখা যায় মোটের ওপর পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিশাল জনগোষ্ঠীর ভ্যাকসিনেশন এরপর দেখা গেছে প্রতিটা ভ্যাকসিনই;

১. প্যান্ডেমিকের ফলে করোনা‘জনিত মারাত্মক অসুস্থতা ও মৃত্যু ব্যাপকভাবে কমিয়ে নিয়ে আসতে পারবে,

২. হাসপাতালের বেডগুলো খালি করতে পারবে,

৩. নতুন ভ্যারিয়েন্ট তৈরীর সম্ভাবনা কমিয়ে দেবে

৪. জীবনযাত্রা স্বাভাবিক ত্বরান্বিত করতে পারবে

 

টেক হোম ম্যাসেজ হলো

১. ‘পছন্দের‘ ভ্যাকসিনের জন্য বসে থেকে সময় নষ্ট না করে যতদ্রুত সম্ভব প্রথম সুযোগেই ভ্যাকসিন নিন

২. প্রতিটা ভ্যাকসিন, প্রতিটা ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকবে । যে ভ্যাকসিন বা ওষুধ যতবেশি সংখ্যক মানুষ ব্যবহার করবে তার সম্পর্কে ততবেশী সংখ্যক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা আপনি শুনবেন । যেমন এস্ট্রাজেনেকা/কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন নিয়েছে সারা পৃথিবীর প্রায় ৪কোটির মতো মানুষ, এরমধ্যে রক্তজমাট বেঁধে মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে সারা পৃথিবীতে ৫০ এর কম । গতসপ্তাহে ম্যারিকায় জনসনের ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসাবেও ৪জনের শরীরে রক্তজমাট বাধার ঘটনা ঘটছে । কিন্তু ভ্যাকসিনেশনের ফলে আদতে যে কোটি কোটি মানুষের জীবন বেঁচে যাচ্ছে সেই সত্যটা আমাদের চোখে পরছে না

৩. ২ ডোজ ভ্যাকসিন নেবার মানেই এটা নিশ্চিত না যে আপনি নিরাপদ । মনে রাখবেন দেশের বাচ্চা বয়স্ক প্রায় ৭০-৮০% মানুষকে টীকা না দেওয়া পর্যন্ত কেউই নিরাপদ নয়।

৪. তাই মিথ্যা প্রোপাগান্ডা না শুনে যতদ্রুত সম্ভব টীকা নিন, স্বাস্হ্যবিধি মেনে চলুন, প্যান্ডেমিককে দ্রুত বিদায় দেবার ব্যবস্থা করুন।

তথ্য সূত্র:

১. https://pubmed.ncbi.nlm.nih.gov/33664494/

২. https://pubmed.ncbi.nlm.nih.gov/33789085/

৩. https://www.jci.org/articles/view/149335

৪. https://www.nytimes.com/.../covid-vaccine-side-effects...

৫. http://globalnews.ca/.../south-african-variant-pfizer.../

 

লেখক: ড. সৈয়দ ফজলে রউফ, মাইক্রোবায়োলোজিস্ট

লেখকের ফেসবুক পোষ্ট থেকে নেয়া


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান