মির্জা কাদেরের দুই ভুল

Tue, Jan 5, 2021 4:07 PM

মির্জা কাদেরের দুই ভুল

সোহেল মাহমুদ: "বৃহত্তর নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগের কিছু কিছু চামচা নেতা আছেন, যাঁরা বলেন অমুক নেতা তমুক নেতার নেতৃত্বে বিএনপির দুর্গ ভেঙেছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বৃহত্তর নোয়াখালীতে তিন-চারটা আসন ছাড়া বাকি আসনে আমাদের এমপিরা দরজা খুঁজে পাবে না পালানোর জন্য। এটাই হলো সত্য কথা। সত্য কথা বলতে হবে। আমি সাহস করে সত্য কথা বলছি।"

"প্রকাশ্যে দিবালোকে পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করেন, তাঁরা হচ্ছেন নেতা। টেন্ডারবাজি করে কোটি কোটি টাকা লুটপাট যাঁরা করেন, তাঁরা হচ্ছেন নেতা। পুলিশের, প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি দিয়ে যাঁরা পাঁচ লাখ টাকা নেন, তাঁরা হচ্ছেন নেতা। গরিব পিয়নের চাকরি দিয়ে তিন লাখ টাকা যাঁরা নেন, তাঁরা হচ্ছেন নেতা।"

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আব্দুল কাদের মির্জার সাম্প্রতিক বক্তব্য। তিনি বসুরহাট পৌরসভার মেয়র। এবং, এবার তৃতীয়বারের মতো আওয়ামী লীগের প্রার্থী। ৩১ ডিসেম্বর সকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরভবন চত্বরে নিজের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণাকালে ওই বক্তব্য দেন তিনি।

মির্জা কাদেরের দুই ভুল।

এক. তিনি দলের ভেতরের চিত্র বাইরে প্রকাশ করেছেন। "সাংগঠনিক নিয়ম" ভেঙেছেন। দলের কারোর বিরুদ্ধে দলীয় ফোরামের বাইরে গিয়ে কথা বলা আমাদের দেশের রাজনীতিতে শৃঙ্খলাবিরোধী কাজ বলে বিবেচিত। দুই. তিনি সাধারণ মানুষের কথা নিজের মুখে তুলে নিয়েছেন। আমাদের দেশের রাজনীতিকরা (বিশেষ করে ক্ষমতার কাছে যারা থাকেন) নিজেদের সাধারণ মানুষের কাতারের কেউ বলে কখনো মনে করেন না। একইভাবে, সাধারণ মানুষও রাজনীতিকদের নিজেদের কাতারের কখনো ভাবেন না।

মির্জা কাদেরের বক্তব্য দু'টি প্রথম আলো থেকে নেয়া। তার বক্তব্যের যে ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল, সেখানে এই কথাগুলোই শোনা গেছে। আরো অনেক কথার ধারাবাহিকতায় এ কথাগুলো এসেছে। তিনি অবশ্য পরে দাবি করেছেন, তার বক্তব্য বিকৃত করা হয়েছে। আমার সেটা মনে হয়নি। প্রচার মাধ্যম যেটুকু গুরুত্বপূর্ণ মনে করেছে, সেটুকুই প্রকাশ করেছে। যেটুকু আমি নিজে শুনেছি, তাতে মনে হয়নি কেউ মির্জা কাদেরের বক্তব্যকে জোড়াতালি দিয়েছে। অন্যজনের কন্ঠ সেখানে যোগ করেছে। তাহলে বিকৃতিটা কোথায়? ভাইয়ের স্ত্রীর সাথে তার যে বিরোধ সেটিও তিনি নিজে প্রকাশ করেছেন বলে নির্ভরযোগ্য সংবাদমাধ্যমের কল্যাণে জানতে পেরেছি। এতো কথা বলে এরপর বক্তব্য বিকৃত অভিযোগ করলেন তিনি।

লেখক: সোহেল মাহমুদ, সাংবাদিক। নিউইয়র্কে বসবাসরত।

লেখকের  ফেসবুক পোষ্ট


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান