’আওয়ামী স্বৈচারারের’ ভাগ্য!

Mon, Oct 12, 2020 11:22 AM

’আওয়ামী স্বৈচারারের’ ভাগ্য!

ফরিদ আহমেদ: আমাদের দেশে সেই পাকিস্তান আমল থেকেই স্বৈরাচারী সরকারের সাথে আমরা পরিচিত। কখনো সেই স্বৈরাচার এসেছে সামরিক বাহিনী থেকে সরাসরি, কখনো বা এসেছে বেসরকারি ছদ্মবেশে। যে বেশেই আসুক না কেনো, সেটার তীব্র প্রতিবাদ করেছে এই দেশের মানুষ। সেই প্রতিবাদের প্রথম সারিতে থেকেছে আমাদের দেশের বুদ্ধিজীবীরা। তাদের দিক নির্দেশনায় সাধারণ মানুষ সঠিক পথটা খুঁজে পেয়েছে। দুই চারজন বুদ্ধিভ্রষ্ট বুদ্ধিজীবী যে স্বৈরাচারের সহযোগিতা করেনি, তা নয়। তবে, তারা কখনোই মানুষের শ্রদ্ধা এবং ভালবাসা পায়নি। দালাল হিসাবেই সবাই তাদেরকে ঘৃণা করেছে।

সব স্বৈরাচারের মধ্যে বর্তমান আওয়ামী স্বৈরাচার সবচেয়ে ভাগ্যবান বলা চলে। বুদ্ধিজীবীদের বৃহৎ অংশটা এই স্বৈরাচারের বিরোধিতা করাতো অনেক দূরের কথা, এটা যে একটা স্বৈরাচারী সরকার, সেটাই স্বীকার করতে চায় না। ক্ষুদ্র একটা অংশ, যাঁরা এটাকে স্বৈরাচার বলতে চায়, তাদেরকেই ব্রাত্য করে রাখা হয়েছে, দলবদ্ধভাবে আক্রমণ করে আদের মুখ বন্ধ করে রাখার মিশনে ব্যস্ত তারা।

আওয়ামী লীগের মতো একটা গণতান্ত্রিক এবং জনবান্ধব দলের স্বৈরাচারে পরিণত হওয়াটা যেমন বিস্ময়কর এবং বেদনাদায়ক আমার জন্য, একইভাবে বিস্ময়কর আমাদের বুদ্ধিজীবীদের এই বিভ্রান্তিকর পথে হাঁটাটাও। এরা কী নির্দ্বিধায় একটা স্বৈরাচারী সরকারকে সমর্থন দিয়ে চলেছে। দলান্ধ হওয়ার একটা মাত্রা থাকে, এদের দলান্ধতার কোনো সীমা পরিসীমা নেই। দেশ যে দলের চেয়েও অনেক বড় একটা জিনিস, সেটাকেই বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত, সেই বোধটাই এদের মধ্যে নেই। আজকে যারা এক স্বৈরাচারের জন্ম দিয়েছে, তারা কোনোদিনই দেশপ্রেমিক হতে পারে না। তা সে শেখের বেটিই হোক না কেনো। স্বৈরাচারের মূল লক্ষ্য থাকে ব্যক্তি কিংবা গোষ্ঠী স্বার্থ উদ্ধারের। এরাও তাই করছে। খামোখা এদেরকে গ্লোরিফাই করা মানে দেশের এবং দেশের জনগণের ক্ষতিকেই বৈধতা দেওয়া হয়।

আমার এই ক্ষুদ্র লেখায় কারো কোনো বোধোদয় হবে না জানি। বরং খুব সহজ হবে আমাকে বিএনপি-জামাতপন্থী বানিয়ে দেবার। বানান, সমস্যা নেই তাতে। একদিন যখন আপনাদের এই ভ্রান্ত নীতির কারণে আওয়ামী লীগের মহা পতন ঘটবে, অস্তিত্ব রক্ষার সংগ্রামে লিপ্ত হবে, তখন যে গুটিকয় লোক আওয়ামী লীগের হয়ে কলম ধরবে, নিশ্চিত থাকতে পারেন, তার মধ্যে আমিও থাকবো। আপনাদের তখন আর খুঁজে পাওয়া যাবে না। হয় ঘাপটি মেরে থাকবেন, নতুন স্বৈরাচারের প্রতি নয়া প্রেম নিয়ে  তার কোলে ঝাঁপিয়ে পড়বেন।

লেখক: ফরিদ আহমেদ, ব্লগার

লেখকের ফেসবুক পোষ্ট থেকে নেয়া


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান