পুলিশের জন্য চাই নারীর প্রতি সংবেদনশীলতার প্রশিক্ষণ

Sun, Oct 11, 2020 3:41 AM

পুলিশের জন্য চাই নারীর প্রতি সংবেদনশীলতার প্রশিক্ষণ

শওগাত আলী সাগর: ধর্ষণ মামলার বিচার হওয়া না হওয়ার পথটা শুরুতেই নির্ধারণ করে দেয় পুলিশ, যারা ঘটনার তদন্ত করেন। ঠিক মতো আলামত সংগ্রহ থেকে শুরু করে অভিযোগপত্র তৈরি- এই সব গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো করে পুলিশ। পুলিশের তৈরি করে দেয়া নথিপত্র,আলামত, অভিযোগপত্র- বিচার প্রক্রিয়া এবং রায়ের গতিপথ নির্ধারণ করে। সেই কারনেই ধর্ষণ মামলার পরিণতি আসলে পুলিশের হাতেই স্থির হয়ে যায়।

যেই পুলিশ এই অতি গুরুত্বপূর্ণ কাজটি করবেন- তার যদি ধর্ষণ সংক্রান্ত আইন সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা না থাকে তা হলে বিচারের প্রক্রিয়াটি দুর্বল হয়ে যেতে বাধ্য। পুলিশের যদি জেন্ডার সেনসিটিভিটি  না থাকে, নারীর প্রতি সংবেদনশীলতা না থাকে তা হলেও বিপদ হবে। সাধারনভাবে যে কোনো দুর্ঘটনায় প্রথমে নারীকে দোষারুপ করার সামাজিক প্রবণতা দ্বারা যদি পুলিশ সদস্যও তাড়িত হন, পুলিশ সদস্যটি যদি নারীকে মানুষ হিসেবে, দেশের নাগরিক হিসেবে, বিচারপ্রার্থী হিসেবে সম্মানের চোখে দেখার শিক্ষা না পেয়ে থাকেন- তা হলেও বিচার প্রক্রিয়া ব্যহত হবে।

কাজেই ধর্ষণ কিংবা নারী নির্যাতনে অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করতে হলে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে নারীর প্রতি সংবেদনশীলতা, সম্মানবোধ তৈরি করতে হবে। নারী নির্যাতন সংক্রান্ত আইনগুলোর উপর পুলিশ সদস্যদের নিয়মিত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে।

সরকার কিংবা পুলিশ বিভাগ নিজ থেকে এ ব্যাপারে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেন। পুলিশ বাহিনীতে নারী নির্যাতন সংক্রান্ত আইনগুলোর উপর নিয়মিত প্রশিক্ষণ এবং পুলিশের মধ্যে নারীর প্রতি সংবেদনশীলতা তৈরির জন্য মিডিয়াও জনমত তৈরির উদ্যোগ নিতে পারে।

 লেখক: শওগাত আলী সাগর, নতুনদেশ এর প্রধান সম্পাদক


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান