সাহিত্য সমালোচকের প্রকারভেদ

Sat, Oct 10, 2020 1:29 PM

সাহিত্য সমালোচকের প্রকারভেদ

স্নেহাশীষ রয়: একটা সমাধি দেখিয়ে, দুইজন ব্যক্তিকে বলা হলো, দু'টি রচনা লিখে আনো।

প্রথম ব্যক্তি, পেশায় ইঞ্জিনিয়ার, তিনি লিখে আনলেন সমাধির দৈর্ঘ্য, প্রস্থ, উচ্চতা, সমাধির নির্মাণ কৌশল, কবরে শায়িত ব্যক্তির জন্ম তারিখ , মৃত্যু তারিখ ইত্যাদি।

অন্য ব্যক্তিটি একজন ভাবুক। সে সমাধি সমাধিকে ঘিরে বনানী, পশু-পাখি দেখে যা সে হৃদয় দিয়ে অনুভব করলেন, তাই লিখে আনলেন।

বাংলাদেশে সাহিত্য সমালোচক দুই ধরণের, প্রথম ধরণটি ঐ প্রকৌশলীর মতো। সে সাহিত্য সমালোচনা করতে গিয়ে, লেখকে কোথায় জন্মগ্রহণ করেছে, কত সালে জন্ম গ্রহণ করেছে, কয়টি পুরষ্কার কত সালে পেয়েছি, কোন আড্ডায় কার সাথে কি বলেছিল, এই সব সুপারফিসিয়াল বিষয় নিয়ে আলাপ করে। সাহিত্যকে অনুভব করার মৌলিক গুণটি তাঁদের নেই।

দ্বিতীয় ধরণটি হলো, যাঁরা সত্যি সাহিত্যকে অনুভব করে। সুপারফিসিয়াল তথ্যগুলোর চেয়ে, সাহিত্যের প্রাণের সন্ধান করাই তাঁদের কাজ।

আমি সাহিত্য সমালোচনা খুব বেশী পড়ি না। তবে, দু'জনকে সাহিত্য সমালোচক হিসেবে ভালো লাগে। একজন সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, অন্যজন সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। আরো , অনেকেই হয়তো ভালো আছে। আমার জানা নেই।

কারা ইঞ্জিনিয়ারের মতো করে সাহিত্য নিয়ে লেখে, তা কিন্তু পড়লেই বুঝা যায়। মজার ব্যাপার হলো, এদের আগ্রহের কোন কমতি নেই। এরা যেন, প্রকাশিত হতে ব্যাগ্র হয়ে থাকে। আপনারা খেয়াল করলেই বুঝতে পারবেন।

  • লেখকের ফেসবুক পোষ্ট

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান