করোনা-কালের জীবনগাঁথা- "রোদনভরা এ বসন্ত"

Fri, Jul 31, 2020 5:39 PM

করোনা-কালের জীবনগাঁথা- "রোদনভরা এ বসন্ত"

মোঃ কামাল উদ্দিন : মার্চের প্রথম সপ্তাহে সস্ত্রীক নিউ ইয়র্ক গিয়েছিলাম ছয় দিনের জন্য। স্ত্রী'র বড় বোনের ফুসফুসে কর্কট রোগ বাসা বেঁধেছে, তাঁকে দেখতে যাওয়াই ছিল একমাত্র কারণ। তখনো নর্থ আমেরিকায় লক ডাউন শুরু হয়নি। এ শতাব্দীতে এই প্রথম নতুন শব্দের সাথে সখ্যতা হলো - লক ডাউন ও আইসোলেশন। বন্ধুরা ফোনে ওদের বাসায় যাওয়ার অনুরোধ জানায়। বললাম - 'কোথাও যেতে নেই মানা' কবিতার এই লাইন এখন নতুন ভাবে লিখতে হবে। 'সবখানে যেতে এখন যে মানা'।

'হোম সুইট হোম' -এ ফিরে এলাম। স্ত্রী কর্মস্থলে ফোন দিলে তাঁর বস বললেন - চৌদ্দ দিন বাসায় থাকো। দুই দিন পর তাঁকে ডেকে নিয়ে আনএপ্লয়মেন্টের কাগজ দিলেন। নর্থ আমেরিকার সর্ববৃহৎ ও সবচেয়ে ব্যস্ত মল টরেন্টোর ডাউন টাউনের "ইটন সেন্টার" কোভিড-১৯ এর জন্য বন্ধ করে দেয়া হলো। স্ত্রী বাসায় এসে হতাশ হয়ে বললেন - মল বন্ধ করে দিয়েছে, বেকার হয়ে গেলাম।

অন্টারিও প্রিমিয়ার-ডগ ফোর্ড ও প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো টিভিতে প্রতিদিন আপডেট দিচ্ছেন ও বলছেন - বাসায় থাকো। মন্ত্রী বলছেন - এনফোর্সমেন্ট অফিসাররা রাস্তায় থাকবে, প্রয়োজনে টিকেট দিবে। নর্থ আমেরিকা চার ঋতুর দেশ। মার্চের ১৯ থেকে জুনের ২০ পর্যন্ত বসন্ত (স্প্রীং) ঋতু। প্রতি বৎসর বসন্তের শুরুতে এলিমেন্টারী ও হাইস্কুল এক সপ্তাহের জন্য ছুটি থাকে। সপ্তাহের শুরু ও শেষে শনি ও রবিবার থাকায় বসন্তের এ ছুটি প্রলম্বিত হয়ে নয় দিন হয়। কোভিড-১৯ -এর কারণে স্কুলগুলির "ছুটির ক্যালেন্ডার" দীর্ঘ হলো।

বাংলাদেশীদের বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে "এসো হে বৈশাখ", আবৃত্তি, মেলা, শুভেচ্ছা বিনিময় সবই থেমে গেলো করোনার কারণে। শনির গ্রহ লেগেছে চুম্বন ও আলিঙ্গন প্রিয় এ জাতির এখন। সব থেমে গেছে। এ বৎসর ফেব্রুয়ারীর এক সন্ধ্যায় রাশ আওয়ারে বাসে উঠেছি। বাসে ভীড় হলে ড্রাইভার স্পীকারে বলেন - "অল দ্যা ওয়ে ব্যাক প্লিজ"। আমার সামনে কিশোর-কিশোরী যুগল আলিঙ্গনাবদ্ধ এক ম্যুরাল হয়ে দাঁড়িয়ে। দুজন দুজনের উষ্ণতা অনুভবে রত। ড্রাইভারের ঘোষণা শুনে আমার দিকে চোখ তুলে হিন্দীতে বললো - পিছনে যাবার জায়গা নেই। আমি পিছনে যাবার চেষ্টা করলে উষ্ণতার ম্যুরালের ছন্দের অবয়বের পতন হবে যে। তথাস্থ, দাঁড়িয়ে জানালায় তুষার দেখি ও মনের ক্যামেরায় ছবি তুলি।

হাইস্কুল থেকে আমাকে ফোন দিয়ে বললো - তোমার ছেলের জন্য হোম ওয়ার্ক পাঠানো হবে ই-মেইলে চোখ রেখো। মেয়ে টরেন্টো ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত, সপ্তাহে তিন দিন তাঁর ক্লাস হয়। প্রতিটি ক্লাস তিন ঘন্টা দীর্ঘ। বাসা থেকে অন লাইনে তাদের ক্লাস চললে আমি ও স্ত্রী "পার্থ প্রতিম মজুমদার" হয়ে যাই।

শীত প্রধান এ দেশে (নর্থ আমেরিকায়) আট-নয় মাস শীত থাকে। মার্চে সামারের (স্প্রীং) ছুটিতে স্কুল বন্ধ হলেই ছেলে-মেয়েরা বাবা-মার সাথে দেশের ভিতর বা দেশের বাইরে বেড়াতে যায়। মার্চে কোভিড-১৯ -এর কারণে সবার পরিকল্পনা ভুন্ডুল হয়েছে। মার্চের ছুটিতে বেড়ানোর জন্য জানুয়ারী বা ফেব্রুয়ারীতেই সবাই হোটেল বুকিং ও প্লেনের টিকেট কিনে থাকেন। ভ্যাঙ্কুয়েবারের এ্যাকুরিয়াম কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে তাদের সোয়া তিন মিলিয়ন ডলার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে, এজন্য এটি বন্ধ করে দেয়া হবে।

সস্ত্রীক বাইরে গিয়েছি, ব্যাংক হয়ে গ্রোসারী করবো। বুকে ব্যথা উদয় হওয়াতে কার্ডিওলজিষ্টকে ফোন করলাম, তাঁর এ্যাসিসটেন্ট বললো - তুমি তো সিক্সটি প্লাস, এসময়ে বাইরে যাবে না। ঘরেই থাকো আর অন লাইন ব্যাংকিং করো। গ্রোসারী ষ্টোরে ঢুকতে হলে দরজার বাইরে দূরত্ব বজায় রেখে লাইনে দাঁড়াতে হয়। দরজায় সিকিউরিটির দায়িত্বে একজন দাঁড়িয়ে তদারকি করেন। কোভিড-১৯ এর শুরুতেই হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক যৌথভাবে বাজার থেকে "নিরুদ্দেশ যাত্রা" করেছে।

ঘর থেকে বের হওয়া বারণ, মেয়ে আমার সময়ের পাখি হয়ে করে শাসন। বের হওয়ার সময়ে বলবে - হ্যান্ড গ্লোভস ও মাস্ক নাও। ঘরে ঢুকলে বলবে - সেল ফোন ও চশমা স্যানিটাইজ করো। প্যান্ট, শীত জ্যাকেট ফ্লোরেই রাখি চব্বিশ ঘন্টা থিতু হবার জন্য। কাঁচা সব্জি কিচেনের ফ্লোরে চব্বিশ ঘন্টা রেষ্টে থাকে, এরপর কিচেন সিংকে চলে সব্জির দীর্ঘ শাওয়ার। ফলেরও কোনো নিস্তার নেই, বেকিং সোডা ও ভিনেগার মিশ্রিত পানিতে তারাও ক্লান্তিহীন ভেসে থাকে।

প্রতিদিন ভোর পাঁচটায় বিছানা ছাড়ার পর রাত দশটায় বিছানায় যাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত ব্যস্ত সময় কাটে। করোনা ভাইরাস নিয়ে তৈরী ছবি, ২০১১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত "কনটেজিয়েন" ( contagion) দেখলাম। উত্তম কুমার অভিনীত ছবি "রাজকুমারী" দেখে বিস্মিত হয়েছি। মৃত্যুর পূর্বে আর কখনো এমন করে অখন্ড অবসর পাওয়া যাবে না, এটা একশ' ভাগ নিশ্চিত করে বলা যায়। "নগদ যা পাও, হাত পেতে নাও"। এজন্য পড়া, পড়া আর পড়াই হোক একমাত্র ব্রত। ভয় হয়, করোনা যদি দরোজায় এসে বলে - "দিনে দিনে বাড়িতেছে দেনা শুধিতে হইবে ঋণ"।

ছবিঃ মোঃ কামাল উদ্দিন

লেখক: মোঃ কামাল উদ্দিন,আলোকচিত্রী


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান