শেষ হলো ৩য় মাল্টিকালচারাল টরন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

Mon, Aug 5, 2019 12:47 AM

শেষ হলো ৩য় মাল্টিকালচারাল টরন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

নতুনদেশ ডটকম : বিপুল উৎসাহ আর উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে তিন দিনের ৩য় মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরন্টো -২০১৯ । টরন্টো ফিল্ম ফোরামের উদ্যোগে  গত ২৬, ২৭ ও ২৮শে জুলাই  এই ফেস্টিভ্যাল অনুষ্ঠিত হয়।

এবারের চলচ্চিত্র উৎসবে ১৪টি ভাষার ২৭টি স্বল্পদৈর্ঘ্য কাহিনীচিত্র, প্রামাণ্যচিত্র, এবং পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়।উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৩০শে জুন, ১লা জুলাই ও ২রা জুলাই এ অনুষ্ঠিত ১ম মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরন্টোতে ১৪টি ভাষার ২৮টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয় এবং ২০১৮ সালের ৩০শে জুন, ১লা জুলাই ও ২রা জুলাই এ অনুষ্ঠিত ২য় মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরন্টোতে ২১টি ভাষার ৩৬টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়।

 

৩য় মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরন্টো ২০১৯ অনুষ্ঠিত হয় ১৯১৪ সালে টরেন্টোয় প্রতিষ্ঠিত কানাডার ২য় প্রাচীনতমমুভি থিয়েটার ২২৩৬ কুইন স্ট্রীট, টরন্টোর ফক্স থিয়েটার এ।

এবারের ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থির ছিলেন কানাডার প্রখ্যাত ফটোগ্রাফার এবং সত্তর ও আশির দশকের কানাডার শীর্ষস্থানীয় মডেল তারকা ইয়াংকা ভ্যান ডার কোল।

উল্লেখ্য, ইয়াংকা বর্তমান পৃথিবীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চলচ্চিত্র উৎসব টরন্টো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা  হেঙ্ক ভ্যান ডের কল্ক এর সহধর্মিনী। ১৯৭৬ সালের গড়ে ওঠা টরন্টো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল সংগঠিত করার পেছনে ইয়াংকা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

 টরন্টো ফিল্ম ফোরাম আয়োজিত মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এর উদ্যেগের ভূয়সী প্রশংসা করে ইয়াংকা বলেন, তিনি তাঁর জীবনে খুবই কাছ থেকে দেখেছেন, কিভাবে একটি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল গড়ে ওঠে। টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর কার্যক্রম ও সদস্যদের দূরদর্শীতা এবং নিষ্ঠা দেখে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই ফেস্টিভ্যাল আগামীতে দেশ-বিদেশের চলচ্চিত্র নির্মাতা, দর্শক ও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির কাছে পৌছবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন কানাডার ফেডারেল সরকারের মন্ত্রী ও স্কারবরো সাউথ-ওয়েস্ট এর সংসদ সদস্য বিল ব্লেয়ারের প্রতিনিধি মি ড্যানকান ও বিচেস-ইস্ট ইয়র্ক এর সংসদ সদস্য ন্যাথানিয়েল এরিস্কিন-স্মিথ এর প্রতিনিধি তানভীর শাহনওয়াজ।

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর সভাপতি এনায়েত করিম বাবুল বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, বর্তমান বিশ্বে জাতি-গোষ্ঠী নির্বিশেষে সব মানুষের মধ্যে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি বাড়ানোর জন্য মাল্টিকালচারাল স্পিরিট এক গুরুত্বপূর্ণ ইতিবাচক ভূমিকা পালন করতে পারে। টরন্টো ফিল্ম ফোরাম যেহেতু চলচ্চিত্র বিষয়ক একটি সংগঠন, সেহেতু চলচ্চিত্রের মাধ্যমে এই মাল্টিকালচারল স্পিরিটটি সবার কাছে পৌঁছিয়ে দিতে এই সংগঠনের সদস্যরা বদ্ধ পরিকর। এই ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে বিভিন্ন ভাষা-ভাষী ও সংস্কৃতির চলচ্চিত্রের সাথে বাংলাদেশের তরুণদের একটি উল্লেখ সংখ্যক চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়েছে। ফলে আমরা খুব সহজেই উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশের চলচ্চিত্র পৌঁছিয়ে দিতে সক্ষম হচ্ছি। তিনি উপস্থিত সবাইকে এই ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল উপস্থিত থাকার জন্য ধন্যবাদ জানান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন এ উৎসবের প্রাইম স্পন্সর বিয়েল্টর শেখ হাসিব হোসেন ও স্পন্সর ব্যারিস্টার চয়নিকা দত্ত। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক মনিস রফিক। উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে বাংলাদেশের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু পরিচালিত আলফা কাহিনী চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয়।

এবারে চলচ্চিত্র উৎসবে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর চারজন সদস্যের চারটি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়। চলচ্চিত্রগুলি হচ্ছে, এনায়েত করিম বাবুল এর বুড়িগঙ্গা ৭১, সাইফুল ওয়াদুদ হেলাল এর ড্রিমক্যাচার, শাকিল হান্নান এর টার্গেট এবং নাদিম ইকবাল এর বিদ্যাভূবন। বিপুল সংখ্যক দর্শক এবারের উৎসবের চলচ্চিত্রগুলি উপভোগ করেন।

 

ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এর শেষ দিনে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর চারজন নির্মাতা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কানাডীয়ান ফিল্ম মেকার জসলিন রজার্স, লেবানীয়-কানাডীয়ান ফিল্ম মেকার মোকাররম রমাদান এবং ইংল্যান্ড ও ইতালী থেকে আগত দুজন অতিথি ফিল্ম মেকার। সমাপনী অনুষ্ঠানে টার্গেট চলচ্চিত্রের নির্মাতা শাকিল হান্নান তাঁর চলচ্চিত্রের কলাকুশলীদের উপস্থিত দর্শকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। ৩য় মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরন্টো ২০১৯ এ স্কুল কলেজের উল্লেখসংখ্যক স্বেচ্ছেসেবীরা অংশগ্রহণ করেন। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি ।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান