আঞ্চলিক কবিতা,লোকসঙ্গীত নিয়ে অন্যস্বরের ভিন্নধারার আয়োজন

Wed, Jun 12, 2019 12:49 AM

আঞ্চলিক কবিতা,লোকসঙ্গীত নিয়ে অন্যস্বরের ভিন্নধারার আয়োজন

নতুনদেশ ডটকম: বহুসংস্কৃতির কানাডায় বাংলাদেশের মাটি আর শেকড়ের অনুভূতিকে যেনো ছড়িয়ে দিয়েছে অন্যস্বর।মেদহীন, টান টান গাঁথুনির ভিন্ন রকমের এক পরিবেশনায় শ্রোতাদের মুগ্ধ করেছে অন্যস্বরের 'মৃত্তিকার পংক্তিমালা ও শিকড়ের সুর'।

গত শনিবার ৪৩৩ বার্চমাউন্টের দুর্গাবাড়ী’র মিলনায়তনে অন্যস্বর বসিয়েছিলো আঞ্চলিক ভাষার কবিতা আর লোকগানের আসর। অন্যস্বরের প্রধান ব্যক্তিত্ব আহমেদ হোসেনের সূচনা বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানমালা। হিমাদ্রী রয় সঞ্জীবের  স্বাগত জাানানোর পর সমবেতন কণ্ঠে গা্ওয়া হয় বন্দনা সঙ্গীত।বন্দনা সঙ্গীতটিও অন্যস্বরের  একেবারে নিজস্ব, সঞ্জীব রয় হিমাদ্রীর লেখা। মূল অনুষ্ঠান শুরুর আগে দর্শক শ্রোতা আর কলাকূশলীদের নিয়ে আয়োজন করা হয় চা চক্রের। একটু পরেই যারা মঞ্চে উঠবেন তারাই যখন দর্শক শ্রোতাদের সাথে ঘুরে ঘুরে চায়ের কাপে চুমুক দেন- তখন নিসন্দেহে  শ্রোতাদের সাথে কলাকূশলীদের ভিন্ন এক মেলবন্ধন তৈরি হয়। অন্যস্বরের এটিও একটি নতুন এবং সৃষ্টিশীল পদক্ষেপ।  

 এরপর শুরু হয় কবিতা আর গানে গানে মাটি আর শেকড়কে তুলে আনার পালা।বার্চমাউন্ট রোডের  ‘দুর্গাবাড়ী’র মিলনায়তনে হলভর্তি শ্রোতাদের কেবল বাংলাদেশে নয়, আঞ্চলিক বিশেষ বিশেষ জনপদে, বিশেষ সম্প্রদায়ের মধ্যে নিয়ে যা্ওয়ার চেষ্টা। সেই চেষ্টায় অন্যস্বরের শিল্পীরা সফল হয়েছেন- তাতে কোনো সংশয় নেই।

আবৃত্তি করেন রিফফাত মুনীর,মুনিমা শারমিন, জুলিয়া নাসরিন,   রওশন জাহান উর্মি, দিলারা নাহার বাবু, রনি মজুমদার, আনিসা রশিদ লাকী,রোজিনা করিম কনক,নূসরাত জাহান চৌধুরী,হিমাদ্রী রয় সঞ্জীব,হাসি রহমান,ফারিহা রহমান। গান ফারহানা শান্তা, মুক্তিপ্রসাদ,রিক্তা মজুমদার,শিরিন চৌধুরী ।

'মৃত্তিকার পংক্তিমালা ও শিকড়ের সুর' সাজানো হয়েছে আঞ্চলিক ভাষার কবিতা এবং লোকসঙ্গীত দিয়ে । আবৃত্তিকাররা উচচারণ  আর অভিব্যক্তিতে চমৎকারভাবেই যেনো আঞ্চলিক আবহকে ফুটিয়ে তুলেছেন। কবিতার পর গান, গানের পর কবিতা কিংবা কবিতার সাথে নূসরাত জাহান ঊর্মির নাচ- সবকিছুতেই যেনো টানটান গাথুনি এবং দক্ষ পরিকল্পনার পরিচয় ফুটে ওঠেছে।

 

 


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান