বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯: বাংলাদেশ কি পারবে সেমিফাইনালে যেতে?

Wed, May 29, 2019 11:43 PM

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯: বাংলাদেশ কি পারবে সেমিফাইনালে যেতে?

কে এ হাফিজ : পুনরায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দীর্ঘ ৪ বছর প্রতীক্ষিত বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ । এবারের বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক হলো ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস । বিশ্বকাপের দলসংখ্যা ১০টি  এবং  খেলা হবে মোট ৪৮টি । টান টান উত্তেজনায় ভরপুর থাকবে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস এর ১১ টি মাঠ এতে কোনো সন্দেহ নেই । রাউন্ড রবিন পদ্ধতিতে প্রথমে ১০ টি দল ৯ টি করে ম্যাচ খেলবে  এবং সেখান থেকে পারফরমেন্স এর ভিত্তিতে প্রথম ৬ টি দল চলে যাবে সেমিফাইনাল পর্বে । সেমিফাইনাল থেকে নক আউট পদ্ধতিতে ২ টি দল চলে যাবে ফাইনালে এবং ফাইনালে জয়ী দল নিয়ে যাবে স্বপ্নের বিশ্বকাপ ২০১৯ । স্বাগতিক ইংল্যান্ড এবং সাউথ আফ্রিকার প্রথম ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে এবারের বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ । খেলাগুলো শুরু হবে কানাডা ইস্টার্ন সময় ভোর ৫.৩০ এবং সকাল ৮.৩০ থেকে যা বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী যথাক্রমে দুপুর ৩.৩০ এবং সন্ধ্যা ৬.৩০ মিনিট । কানাডার দর্শকরা সরাসরি খেলাগুলো দেখতে পাবেন Willow TV তে । বাংলাদেশের গাজী TV, মাছরাঙা এবং বিটিভি খেলাগুলো সরাসরি সম্প্রচার করবে ।

এবারে চলে আশা যাক মূল প্রসঙ্গে । বাংলাদেশ কি পারবে সেমিফাইনাল এ যেতে? আমরা সবাই জানি  ক্রিকেট একটি অনিশ্চয়তার খেলা । সেদিক থেকে দেখলে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল স্বপ্ন একেবারে উড়িয়ে  দেয়া যায় না । আইসিসি বিশ্ব রেঙ্কিং এ বংলাদেশের এর অবস্থান এখন ৭ নম্বরে । সুতরাং বাংলাদেশ যদি তার রাউন্ডলীগের  অবস্থান ৪ এ আনতে পারে তাহলেই বাংলাদেশ চলে যাচ্ছে সেমিফাইনালে । বাস্তবে যদিও এটা কঠিন কিন্তু অসম্ভব নয় একেবারেই । চলুন ছোট্ট একটি বিশ্লেষণ করে দেখে নেই পুরো ব্যপারটা ।  এই বিশ্লেষণের জন্য আমরা ২০১৫ থেকে ২০১৯ এর পর্যন্ত বাংলাদেশের সাথে প্রতিটি  দলের ওডিআই খেলার পর্যালোচনা করবো ।

আমরা যদি রাউন্ড রবিন লীগের ফিক্সচার লক্ষ্য করি তাহলে দেখবো যে প্রতিটি  দলকে ৯ টি করে খেলায় প্রতিযোগিতা করতে হবে । বাংলাদেশ কে সেমিফাইনালে যেতে হলে এই ৯টি খেলার মধ্যে জিততে হবে ৬ টি খেলায় । বাংলাদেশের প্রথম খেলা দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে । ২০১৫ থেকে ২০১৯ এর পর্যন্ত বাংলাদেশ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা খেলেছে মোট ছয়বার । যেখানে বাংলাদেশের জয় মাত্র ২বার এবং ৪ বার এর জয়ী দক্ষিণ আফ্রিকা । সুতরাং ধরে নেয়া যেতে পারে উক্ত ম্যাচ এ দক্ষিণ আফ্রিকা জয়ী হবে । তার পরের ম্যাচ নিউজিল্যান্ড এর সাথে । ২০১৫ থেকে ২০১৯ এর পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড এর সাথে খেলা হয়েছে মোট ১০ বার । সেখানে নিউজিল্যান্ড জয়ী হয়েছে ৮ বার এবং বাংলাদেশ জয় পেয়েছে মাত্র ২ বার । কিন্তু ক্রিকেট পরিসংখ্যানে খেলার ভেন্যু একটা বড় সূচক । নিউজিল্যান্ড এর বাহিরে বাংলাদেশের সাথে ৩ টি খেলার মোকাবেলায় বাংলাদেশের জয় ২ টি তে আর নিউজিল্যান্ড এর মাত্র একটি । ভেন্যু সাপেক্ষে ধরে নেয়া যেতে পারে বাংলাদেশ এর জয় এর সম্ভাবনা আছে এ ম্যাচে ।

অতঃপর ইংল্যান্ড । ২০১৫ থেকে ২০১৯ এর পর্যন্ত  ইংল্যান্ড এর সাথে বাংলাদেশ মোকবেলা করেছে মোট ৫ বার এবং ইংল্যান্ড জয় পেয়েছে ৩ বার এবং বাংলাদদেশের জয় ২ বার । তাই ধরে নেয়া যেতে পারে ইংল্যান্ড এই ম্যাচে এ জয়ী হবে । এর পর আসছে শ্রীলংকা । ২০১৫ থেকে ২০১৯ এর পর্যন্ত শ্রীলংকার সাথে বাংলাদেশের মোট খেলার সংখ্যা ৮ বার । শ্রীলংকার জয় ৪ টি তে আর বাংলাদেশের ৩ টি তে । একটি খেলার ফলাফল হয়নি । ধরে নেয়া যেতে পারে এ ম্যাচে শ্রীলংকা জয়ী হবে । এবারে আসছে ওয়েস্টইন্ডিজ । বাংলাদেশের সাথে ২০১৫ থেকে ২০১৯ এর পর্যন্ত ওয়েস্টইন্ডিজ এর খেলার সংখ্যা মোট ৬ টি । বাংলাদেশের জয় ৪ টিতে এবং ওয়েস্টইন্ডিজ  এর জয় এর সংখ্যা ২ টি । তাই এ ম্যাচে ধরে নেয়া যায় বাংলাদেশ জিতবে । ২০১৫ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সাথে বাংলাদেশের খেলাগুলো বৃষ্টির কারণে পরিত্যাক্ত হয়েছে । তারপরেও অস্ট্রেলিয়ার বর্তমান আইসিসি রেঙ্কিং বাংলাদেশের চেয়ে ওপরে থাকার কারণে ধরে নেয়া যেতে পারে অস্ট্রেলিয়া জয়ী হবে । আফগানস্থান এর সাথে ২০১৫ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত বাংলাদেশের খেলার সংখ্যা মোট ৬ টি, বাংলাদেশের জয় ৮টিতে এবং আফগানিস্তানের জয় ২টিতে । তাই ধরে নেয়া যেতে পারে বাংলাদেশের জয় হবে এ খেলাতে । এবার আসছে ভারত । এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট । ২০১৫ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত ভারতের সাথে বাংলাদেশের মোট খেলার সংখ্যা ৭ টি । ভারতের জয় ৫টিতে এবং বাংলাদেশের জয় মাত্র ২ টিতে । ধরে নেয়া গেলো এখানে ভারতের জয় হবে ।

এরপর আসছে পাকিস্তান । এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম আন্ডারডগ । ২০১৫ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত বাংলাদেশের জয় এর সংখ্যা পাকিস্তান এর চেয়ে বেশি আর তাই ধরে নেয়া যাক এখানে বাংলাদেশ জিতবে । তাই উপরের বিন্যাস থেকে দেখা গেলো যে বাংলাদেশের হারার সম্ভাবনা ৫ টি ম্যাচে এবং জয়ী হবার সম্ভাবনা ৪ টি ম্যাচে । তাই বাংলাদেশ যদি তার সম্ভাবনা ১০০ তে ১০০ কাজে লাগিয়ে উপরোক্ত 8 টি ম্যাচ জিততে পারে আর তার সাথে যে কোনো ২টি ম্যাচ জিতে যায় (ইংল্যান্ড/অস্ট্রেলিয়া/ভারত/সাউথ আফ্রিকা/শ্রীলংকা) এর সাথে তাহলেই বাংলাদেশ চলে যাবে সেমিফাইনালে ।  এখানে বলে রাখা ভালো যে গত বারের বিশ্বকাপেও বাংলাদেশ ইংল্যান্ড এর মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়েছিল এবং কোয়ার্টার ফাইনালে কোয়ালিফাই করে ছিল । তার উপর আছে আমাদের বিশ্বের ১ নম্বর অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান । এবারের বিশ্বকাপেই  আছে ৪ জন খেলোয়াড়ের (মাশরাফি, তামিম, সাকিব, মুশফিক) ৩ বার করে বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা যা কিনা যে কোনো বিশ্বকাপ থেকে সর্বাধিক। তার উপর বাংলাদেশের রয়েছে সদ্য আয়ারল্যান্ড এ অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় কাপ এ চ্যাম্পিয়ন হবার অভিজ্ঞতা । কাজেই ইংল্যান্ড/অস্ট্রেলিয়া/ভারত/সাউথ আফ্রিকা/ শ্রীলংকা এর সাথে যে কোনো দুটো অঘটন ঘটালে অবাক করার কিছু থাকবে না । সবচেয়ে বড় কথা যার যার অবস্থান থেকে সেরা খেলাটা সময় মতো বের হয়ে আসলে অবশ্যই সেমিফাইনালে দেখা যেতে পারে  বাংলাদেশকে । যেমন সাকিব এর বোলিং ইকোনমি রেট ৪.৫ এর মধ্যে রাখা । রেকর্ড বলে যে, সাকিবের এই বোলিং রেট বেশিরভাগ সময় জয়সূচক ভূমিকা রেখেছে । মুশফিক এর চিকি শট খেলে উইকেট এ টিকে থেকে ধীরে ধীরে রান বাড়িয়ে নেয়াটা এবং রুবেল কে দিয়ে স্লগ ওভারে ২/১ টি উইকেট সময়মতো তুলে নেয়া আরো দুটি বড় সূচক । ঠিক তেমনি সব সদস্যদের তাদের প্রত্যেকের দক্ষতার সূচক গুলো সময় মতো একসাথে  কাজে লাগানো গেলে হয়তো আমরা দেখতে পারবো আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে সেমিফাইনালের কাতারে । এখন শুধু অপেক্ষার পালা এবং তার সাথে শুভ কামনা ।

mistymama13@yahoo.co.uk


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান