চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা উপলক্ষে টরন্টোয় শিশুদের মিলনমেলা

Sun, Feb 17, 2019 1:06 AM

চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা উপলক্ষে টরন্টোয় শিশুদের মিলনমেলা

ইমাম উদ্দিন : রং পেন্সিল হাতে মাকে নিয়ে খুব ভোরেই অনুষ্ঠানস্থলে হাজির আট বছরের ফারিয়া ও তার ছোট বোন ফাইজা। প্রিয়ন্তি আর লুবাবাও এসেছে একটু পরেই। সাথে ছিল মা-বাবা দুজনই। এভাবে একে একে প্রায় অর্ধশতাধিক শিশু অনুষ্ঠানস্থলে এসে পৌঁছায় সকাল সাড়ে দশটার মধ্যেই। এরা সবাই এসেছে টরন্টো ও এর আশে পাশের এলাকা থেকে বেঙ্গলি ইনফরমেশন এন্ড এমপ্লয়মেন্ট সার্ভিসেস (বায়েস) আয়োজিত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে। ১৬ ফেব্রুয়ারি, শনিবারের এই আয়োজনস্থলটি ছিল টরন্টোর ডেনফোর্থ এভিনিউস্থ এক্সেস পয়েন্টে। এক পর্যায়ে অনুষ্ঠানস্থলটি শিশুদের মিলনমেলায় রূপ নেয়। প্রতিবছরের মতো এবারও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে বায়েস এর আয়োজন করে। শিশুরা ছাড়াও এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য, অভিভাবক ও কমিউনিটির বিশিষ্ঠজনরা উপস্থিত ছিলেন।

শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল “আমার দেশ, আমার ভাষা”। শিশু শিল্পীরা জল রঙ, অয়েল প্যাস্টেল (মোমের রঙ) কাঠ পেন্সিলের রঙে মনের মাধুরি মিশিয়ে ভাষার জন্য বাঙালীদের মহান আত্মত্যাগ, শহীদ মিনার আর স্মৃতিময় সেসব বীরত্মহগাঁথার দৃশ্য ক্যানভাসে ফুটিয়ে তুলেছে। ক্ষুদে শিল্পীদের রঙ তুলির আঁচড়ে নান্দনিক চিত্রকর্মগুলো বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, শহীদ মিনার আর রূপসি বাংলার প্রতিচ্ছবি।

দুটি বিভাগে আয়োজিত ছয় থেকে বারো বছরের শিশুদের এ প্রতিযোগিতায় যথাক্রমে সুবাহ নূর ও আব্রাহাম প্রমাণিক প্রথম, ইরতিজা হক ও ফারিহা মৃধা দ্বিতীয় এবং রিসিকা কর ও লুবাইবা তুনাইরা তৃতীয় হয়। প্রতিযোগিতার বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী উৎপল নীল। তাঁকে সহায়তা করেন সাংবাদিক মাহবুবুল হক ওসমানি। বিচেস ইস্ট ইয়র্কের নেথেনিয়াল স্মিথ এমপি, বায়েসের আজীবন সদস্য ব্যারিষ্টার চয়নিকা দত্ত, সিবিএন টুয়ান্টি ফোরের সম্পাদক মাহবুবুল হক ওসমানি আলোচনায় অংশ নেন ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করেন। বায়েসের নির্বাহী পরিচালক পরিচালক ইমাম উদ্দিনের সঞ্চালনায় একুশের আলোচনা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বেশ কয়েকজন অভিভাবক, বায়েসের সদস্য, সেচ্ছাসেবকরাও বক্তব্য রাখেন। শিশু চিত্রশিল্পী ছাড়াও কমিউনিটির বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার প্রতিনিধিগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনায় বক্তারা বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালি জাতির চির প্রেরণা ও অবিস্মরণীয় একটি দিন। এটি শুধু বাংলাদেশের নয়, এখন এটি সারা বিশ্বের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালিত হচ্ছে। প্রবাসে জন্ম ও বেড়ে ওঠা শিশুদের মাঝে বাংলাদেশ, এর ইতিহাস, সংস্কৃতিকে তুলে ধরার ক্ষেত্রে এ ধরনের আয়োজন নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা উপলক্ষে অনুষ্ঠানস্থলে খাবারের দোকান, ফেইস পেইন্টিং এর ব্যবস্থা ছিল। আর এই আয়োজনে সহায়তা করেন রিয়েলটর দেওয়ান আহমেদ।

 

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিশু সুবাহ বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত এতে অংশগ্রহণ করতে পেরে। অভিভাবক ফেরদৌসী সুলতানা বলেন, প্রতিবারই আমি মেয়েদের নিয়ে আসি এ আয়োজনে । আমার ভীষণ ভাল লাগে। সিআইবিসি ব্যাংকে কাজ করেন জলি নূর। বন্ধের দিনটায় স্বেচ্ছাশ্রম দিয়েছেন এই অনুষ্ঠান আয়োজনে। তিনি বলেন, বিদেশে আমাদের সন্তানদের মাঝে দেশীয় সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্রে এ ধরনের আয়োজনের কোনো বিকল্প নেই। পুরস্কার বিতরণ শেষে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। শিশু আর অভিভাবকগণ অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন হাসি মুখে আগামী বছর আবার আসার প্রত্যাশায়।

ছবি: চিত্রাঙ্কনে অংশগ্রহণকারী ও অতিথি, আলোচনা অনুষ্ঠান, এবং পুরস্কার প্রাপ্ত চিত্র কর্ম


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান