বাচনিকের পাঁজরে পঞ্চস্বর

Sun, Nov 4, 2018 7:59 PM

বাচনিকের পাঁজরে পঞ্চস্বর

রেজাউল ইসলাম: বাচনিক দীর্ঘ দিন ধরে টরোন্টোতে বিশুদ্ধ ধারার সংস্কৃতি চর্চা করে আসছে। সংস্কৃতি যেখানে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মুনাফা এবং বাণিজ্যের মাধ্যম হয়ে উঠেছে সেখানে বাচনিক সম্পূর্ণ ব্যতিক্ৰম এবং স্বতন্ত্র ধারার মাধ্যমে সংস্কৃতির নান্দনিক এবং মানবিক দিকটির প্রকাশ ঘটিয়েছে সফলভাবেই ।

এবারও বাচনিকের পরিবেশনায় হয়ে গেলো 'পাঁজরে পঞ্চস্বর' কবিতানির্ভর অনুষ্ঠানটি । অনুষ্ঠানটিতে নানারকম কবিতার বর্ণাঢ্য এবং বহুমুখী আয়োজন ছিল । বৃন্ত আবৃত্তি , একক আবৃত্তি এবং যৌথ বা যুগল আবৃত্তির চমৎকার পরিবেশনায় অনুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত এবং উপভোগ্য হয়ে উঠেছিল । কবিতার ফাঁকে ফাঁকে নৃত্য অনুষ্ঠানটিতে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছিল।

বাচনিকের সূচনাপর্বে মুস্তফা চৌধুরীকে সম্মাননা দেওয়া হয় । মুস্তফা চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযুদ্ধের যুদ্ধ শিশুদের নিয়ে কাজ করেছেন । যুদ্ধশিশুদের নিয়ে তিনি তাঁর গবেষণাধর্মী গ্রন্থ "৭১ এর যুদ্ধশিশু" প্রকাশ করেছেন । গ্রন্থটি নানা কারণেই অসাধারণ এবং আলোচিত হয়ে উঠেছে । ৭১ এর শিশুরা নানাভাবে অবহেলিত এবং নিগৃহীত ছিল । মুস্তফা চৌধুরীর গ্রন্থটি তাঁদেরকে পরিচিতি দিয়েছে , সম্মান এনং মর্যাদার আসনে বসিয়েছে । মুস্তফা চৌধুরী এই কানাডার মাটিতে যুদ্ধশিশুদের পুনর্বাসনের/এডাপটেশনের ক্ষেত্রে নানাভাবে অবদান রেখেছেন । ৭১ এর যুদ্ধশিশুদের বয়স এখন৪৬ ছুঁয়েছে । তাঁরা এখন মর্যাদার আসনে আসীন , নিজ দেশেও সমাদৃত । ৭১ শিশুদের নিয়ে ইতিপূর্বে তেমন কিছুই ছিল না । মুস্তফা চৌধুরী তার গ্রন্থের মাধ্যমে সেই শূন্য স্থানটি পূরণ করেছেন । বাচনিকের আবিষ্কার মুস্তফা চৌধুরী , মানুষ কৃতজ্ঞচিত্তে মনে রাখবে ।

অনুষ্ঠানটিতে বক্তব্য রেখেছেন স্কারবোরো সাউথওয়েস্টের এমপিপি ডলি বেগম , হাসান মাহমুদ এবং মুস্তফা চৌধুরী ।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক নির্দেশনা এবং পরিচালনায় ছিলেন মেরী রাশেদীন । কবিতা আবৃত্তি করেছেন এলিনা মিতা , রেজা অনিরুদ্ধ ,সুমি রহমান , হোসনে আরা জেমী , কাজী হেলাল , মেরী রাশেদীন , আসমা হক, ফারহানা আহমেদ , পূরবী ভদ্র , ম্যাক আজাদ , জাহানারা বুলা , মেহরাব রহমান ।

এই আবৃত্তি সন্ধ্যায় উল্লেখযোগ্য কবিতার মধ্যে আবু জাফর ওবায়দুল্লার ' আমি কিংবদন্তির কথা বলছি' , শামসুল হকের 'নুরুলদীনের সারাজীবন' পরানের গহীনে ভিতর' 'আমার পরিচয়'হুমায়ুন আজাদের 'আমাকে ভালোবাসার পর' আবৃত্তি করা হয় । নতুন প্রজন্মের আবৃত্তিকার মাসুদ জেবিন রায়না, অনুভা জয়ী নাথ , সম্পূর্ণা নাথ কাজী নজরুল ইসলামের 'প্রভাতী', 'বাংলাদেশ' আবৃত্তি করে শোনান ।

নৃত্য শিল্পীদের মধ্যে বরাবরের মত অরুণা হায়দারের নৃত্য ছিল দেখার মত । অন্যান্যদের মধ্যে সূচনা দাস বাঁধন , ডালিয়া আহমেদের নৃত্য দৃষ্টি নন্দন ছিল । হাসান মাহমুদ এনং ম্যাক আজাদের যৌথ পরিবেশনায় " বৃদ্ধ এবং যুবকের সংলাপ" ভালো লেগেছে ।

সর্বশেষে বাংলাদেশ এবং টরোন্টোর স্বনামধন্য রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী নাহিদ কবির (কাকলী) জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন ।

এমন একটি সুন্দর এবং সার্থক অনুষ্ঠানের জন্য দর্শক সারি থেকে বাচনিককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ।

"শানিত হোক প্রাণিত হোক, সত্য শব্দ কবিতা"


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান