‘উদীচীকে কানাডার উপযোগি করে গড়ে তুলতে হবে’

Wed, Mar 7, 2018 12:55 AM

‘উদীচীকে কানাডার উপযোগি করে গড়ে তুলতে হবে’

নতুনদেশ ডটকম: ‘উদীচী’কে কানাডার উপযোগি করে গড়ে তোলার তাগিদ দিয়ে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সূচনা বাংলাদেশে হলেও কানাডায় কর্মসূচী গ্রহনের ক্ষেত্রে প্রবাসের বাস্তবতা, বাংলা সংস্কৃতির ঝুকিঁগুলো বিবেচনায় রেখেই সংগঠনের কর্মপরিধি নির্মান করতে হবে।

গত রোববার ক্যাফে ডি তাজে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডার নেতৃবৃন্দ উদীচীকে প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক, শিল্পী-কর্মীদের শক্তিশালী সংগঠনে রুপান্তরিত করার ঘোষনা দেন। তাঁরা বলেন, প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিলে বাংলাদেশ এবং কানাডায় উদীচীর কর্ম তৎপরতা ভিন্নতর হওয়া স্বাভাবিক। রাজনৈতিক বক্তব্য প্রচারের চেয়েও কানাডায় বাংলাসংস্কৃতিকে মূলধারায় তুলে ধরা, নতুন প্রজন্মকে বাংলা সংস্কৃতিতে সম্পৃক্ত রাখাই কানাডায় যে কোনো সাংস্কৃতিক সংগঠনের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হওয়া উচিত বলে আমরা মনে করি।

অভ্যন্তরীন সংকটে গত বছর উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, কানাডা বিভক্ত হয়ে  পরে এবং  বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী কানাডা শাখা এবং উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডা নামে আলাদাভাবে তাদের কর্মকান্ড পরিচালনা করছে। এতোদিন নানা সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত থাকলেও এই প্রথম উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডা নিজেদের বক্তব্য নিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সংগঠনের সহসভাপতি সুমন সাইয়েদ। সংগঠনের সাধারন সম্পাদক দেবাশীষ সাহার পরিচালনায় সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মামুনুর রশীদ,সাবেক সভাপতি দীনা সাইয়েদ,ইত্তেলা, সাজ্জাদ হোসেন সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। এ সময় সুমী বর্মন, গৌরী দাস, মোহাম্মদ আলমগীর প্রমূক উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, কানাডায় বসবাসরত প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক, শিল্পী কর্মীদের নিয়ে ১৯৯৮ সালে যে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডা গঠিত হয়- তার লক্ষ্যই ছিলো নতুন প্রজন্মের কাছে বাংলাদেশের শত বছরের অসাম্প্রদায়িক চেতনায় গড়ে ওঠা ঐতিহ্যকে তুলে ধরা। গত ১৯ বছর ধরে নতুন প্রজন্মকে সাথে নিয়েই উদীচীর কর্মকান্ড পরিচালনা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, কানাডা উদীচী যখন দুর্বার গতিতে সামনে এগিয়ে যাচ্ছিলো, তখনি উদীচীর সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডকে ব্যাহত করে এটিকে বিমেষ একটি রাজনৈতিক দলের ‘লেজুড়ে’ পরিণত করার চেষ্টা শুরু হয়। ফলে সাংস্কৃতিক সংগঠন হিসেবে উদীচীর পরিচিতি প্রশ্নের মুখে পড়ে যায় এবং স্বাভাবিক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড পরিচালনা অসম্ভব হয়ে পড়ে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, উদীচীর সর্বশেষ সভায়  তাদের ‘ঔদ্ধত্যপূর্ণ’ আচরনেরর কারনে তৎকালীন সভাপতি সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেন। উদীচীর কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যাবার স্বার্থেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই আহ্বায়ক কমিটি সম্মেলনের মধ্য দিয়ে ২০১৬ সালে নতুন নির্বাচিত কমিটির কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করে।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডা কানাডায় নিবন্ধিত একটি সংগঠন এবং নিবন্ধনের কোনো ধারাতেই কেন্দ্রীয় উদীচীর সাথে সম্পৃক্ত থাকার কোনো কথা উল্লেখ নেই। কাজেই উদীচী কানাডার সদস্যদের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহনের এখতিয়ারও কেন্দ্রীয় কমিটির নেই।

সংবাদ সম্মেলনে উদীচী নেতৃবৃন্দ বলেন, কানাডার আইনে অন্য কোনো দেশের শাখা হিসেবে কোনো সংগঠন পরিচালনাকে অনুমোদন করে না। সেটি বেআইনি হিসেবে বিবেচিত হয়।

উদীচী নেতৃবৃন্দ সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর ও ব্যাখ্যা দেন।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান