অন্টারিওর ন্যুনতম মজুরী ঘন্টায় ১৪ ডলার : একটি বিশ্লেষণ

Tue, Nov 14, 2017 12:01 PM

অন্টারিওর ন্যুনতম মজুরী  ঘন্টায় ১৪ ডলার : একটি বিশ্লেষণ

রেজাউল ইসলাম :

আগামী জানুয়ারী থেকে অন্টারিওতে ন্যুনতম মজুরী বৃদ্ধির কথা রয়েছে। এইবারই এক সাথে প্রায় চার ডলারের মত এক ধাপে বৃদ্ধি করা হচ্ছে । বলা বাহুল্য,এটি একটি নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি । আগামী নির্বাচনী বৈতরণী পার হবার কৌশল মাত্র । তবে এর দ্বারা বর্তমানের অন্টারিও প্রিমিয়ার জিতে আসতে পারবেন কিনা সন্দেহ আছে , কারন ইতিমধ্যে তার জনপ্রিয়তা নিম্নগামী , তা উপরে উঠার তেমন কোন সম্ভাবনা নাই ।

 

ধারাবাহিকভাবে না বাড়িয়ে এক ধাপে প্রায় চার ডলার বাড়িয়ে দেওয়ার মধ্যে অনেক ঝুঁকি আছে , কারন এই বাড়তি অর্থ সরকার থেকে যোগান দেওয়া হবে না, এই অর্থ প্রতিটি কোম্পানী, প্রতিষ্ঠানকে নিজ লভ্যাংশ থেকে দিতে হবে যার জন্য তারা প্রস্তুত থাকতে না-ও পারে । এই বাড়তি অর্থ তারা কোথা থেকে দেবে?

 

১) কোম্পানী, প্রতিষ্ঠান গুলি এই বাড়তি অর্থের যোগান দিতে গিয়ে কর্মচারীদের কর্ম ঘন্টা কমিয়ে দিতে পারে । ইতিমধ্যে যারা পার্ট টাইম, ক্যাজুয়াল হিসাবে আছেন তাদের কর্ম ঘন্টা আরো হ্রাস করে দেওয়া হতে পারে ।

 

২) নতুন নিয়োগের ক্ষেত্রে ফুল টাইমের বদলে পার্ট টাইম , ক্যাজুয়াল এমপ্লয়ী নিয়োগের  সম্ভবনা বৃদ্ধি পাবে যাতে করে এমপ্লয়ীদের  সাপ্তাহিক পুরো ৪০ ঘণ্টার জায়গায় ম্যানেজমেন্টের সুবিধামত কর্ম ঘন্টা দেওয়া সম্ভব হয় ।  কারন ফুল টাইম হায়ার করলে সাপ্তাহিক কমপক্ষে ৪০ ঘণ্টা দিতে কোম্পানী, প্রতিষ্ঠানগুলি বাধ্য কিন্ত পার্ট টাইম, ক্যাজুয়েল এমপ্লয়ীদের  ৪০ ঘণ্টা দিতে কোম্পানী , প্রতিষ্ঠান গুলি বাধ্য নয় । ফলে কোম্পানি, প্রতিষ্ঠানগুলি তাদের সুবিধামত ব্যয় বাঁচিয়ে লভ্যাংশের দিকে লক্ষ্য রেখে কর্ম ঘণ্টা হ্রাস করে দেওয়ার নীতি গ্রহন করবেন।

 

৩) এই বাড়তি অর্থের যোগানের জন্য কর্মচারী ছাটাইয়ের সম্ভবনা আছে । যে কাজ দশ জনকে দিয়ে করা হোত সেই কাজ তিন জন/ চারজনকে দিয়ে করিয়ে নেওয়ার প্রবনতা বৃদ্ধি পাবে। ফলে কর্মচারীদের উপর বাড়তি চাপ সৃষ্টি হবে । যারা দক্ষ , অভিজ্ঞ এবং কর্মঠ তারাই এই ছাটাই প্রক্রিয়ায় বাদ না পড়ে টিকে থাকতে পারবে আর যারা কম দক্ষ , কম অভিজ্ঞ তারা ছাটাইয়ের শিকার হতে পারেন । এক রিপোর্টে দেখা গেছে , আগামী বৎসর ন্যুনতম মজুরী বৃদ্ধির জন্য প্রায় ৫৫০০০ কর্মচারী কাজ হারাবে ।

 

৪) ক্রেতা নির্ভর কোম্পানী, প্রতিষ্ঠান গুলি এই বাড়তি অর্থের আয়োজন করতে গিয়ে পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে দিতে পারে যা ইতিমধ্যে কিছু কিছু ক্ষেত্রে করা হয়েছে । পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির সংগে সংগে জীবন যাত্রার ব্যয় অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে, ক্রেতাদের উপর বাড়তি খরচের বোঝা চেপে বসবে । ক্রেতারা এর থেকে বাঁচার জন্য  ব্যয়  সংকোচনের নীতি গ্রহন করবে । ব্যয় সংকোচন হলে অর্থনীতির চাকাও শ্লথ হয়ে যাবে ।

 

৫) যে সব এজেন্সী সাব -কন্টাক্টের মাধ্যমে হায়ার করে তারা মূল এমপ্লয়ারের  কাছ থেকে কমিশন আরো বৃদ্ধির জন্য চেষ্টা চলাবে ।  সেক্ষেত্রে মুল এম্পোয়ারের ব্যয়ও বেড়ে যাবে । তখন এই এমপ্লয়ারগুলিও ব্যয় সংকোচনের পথে পা বাড়াবে ।

 

৬) ছোট ছোট কোম্পানী , প্রতিষ্ঠান গুলি এই বাড়তি অর্থের যোগান না দিতে ব্যর্থ হয়ে শেষ পর্যন্ত কোম্পানী ,প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে ( wind up ) করে দিতে পারে ।

 

উপরের বিশ্লেষন থেকে খুব সহজেই অনুমেয় , ন্যুনতম মজুরী বৃদ্ধি সু-ফলের পরিবর্তে অনেক কু-ফলও বয়ে আনতে পারে যেটি জনজীবনে শান্তি না দিয়ে আরো অশান্তির কারন হতে পারে ।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
External links are provided for reference purposes. This website is not responsible for the content of externel/internal sites.
উপরে যান