জাতীয় চার নেতার অন্যতম কামারুজ্জামানকে নিয়ে প্রামাণ্য চলচ্চিত্র  ‘ধ্রুবতারা’  ইউটিউবে মুক্তি পেলো

Thu, Nov 2, 2017 12:20 AM

জাতীয় চার নেতার অন্যতম কামারুজ্জামানকে  নিয়ে প্রামাণ্য চলচ্চিত্র  ‘ধ্রুবতারা’  ইউটিউবে মুক্তি পেলো

নতুনদেশ ডটকম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের অন্যতম সহযোগী, চাত্তরের ৩ নভেম্বর কারাগারে নির্মমভাবে নিহত শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামানকে নিয়ে নির্মিত প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উত্তরের মানুষ ধ্রুবতারাইউটিউবে মুক্তি  পেয়েছে।  প্রায় ৪৬ মিনিট দীর্ঘ এ প্রামাণ্য চলচ্চিত্রে শহীদ কামারুজ্জামানের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ও ব্যক্তিজীবন স্বজন, সহযোদ্ধা ও প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষায় উঠে এসেছে।

শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান অবিভক্ত বাংলা ও পূর্ববঙ্গ আইন পরিষদের সদস্য ছিলেন। তিনি একাত্তরের ৮ মার্চ কারফিউ প্রত্যাহারের জন্য পত্রিকায় বিবৃতি দেন ও ১১ মার্চ রাজশাহীর ভুবন মোহন পার্কে এক বিশাল জনসভায় স্বাধীনতা অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। তিনি ১৭ এপ্রিল মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সরকারের শপথগ্রহন অনুষ্ঠানে শপথ নেন এবং স্বরাষ্ট্র, ত্রাণ ও পুনর্বাসন দপ্তরের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু স্বপরিবারে নিহত হওয়ার সময় কারাবন্দী হন ও ৩ নভেম্বর রাতে কারাগারে গুলিবিদ্ধ হয়ে শহীদ হন।

শহীদ কামারুজ্জামানের পূর্বসুরী ও উত্তরসুরীদের অনেকেই রাজনীতির সাথে জড়িত থেকে গণমানুষের জন্য লড়াই সংগ্রাম অব্যহত রেখেছেন। তাঁর দাদা জমিদার হাজ্বী লাল মোহাম্মদ কংগ্রেসের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকাকালে দুবার লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের সদস্য (এমএলসি) নির্বাচিত হন; রাজশাহী এসোসিয়েশন ও বরেন্দ্র একাডেমীর একমাত্র মুসলিম সদস্য ছিলেন। শহীদ কামারুজ্জামানের পিতা আব্দুল হামিদ মিয়া রাজশাহী অঞ্চলে মুসলিম লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন ও পূর্ব পাকিস্তান আইন সভার সদস্য (এমএলএ) হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

শহীদ কামারুজ্জামানের বড় ছেলে এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ২০০৮ সালে বিপুল ভোটে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন, তাকে রাজশাহীর অন্যতম সফল মেয়র বলা হয়। শহীদ কামারুজ্জামানের পুতিন ও খায়রুজ্জামান লিটনের বড় মেয়ে আনিকা ফারিহা জামান অর্ণা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সহ-সভাপতি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক। বাংলাদেশের ইতিহাসে গণমানুষের উন্নয়নে একই পরিবারের এমন ধারাবাহিক অংশগ্রহনের নজির প্রায় বিরল।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
External links are provided for reference purposes. This website is not responsible for the content of externel/internal sites.
উপরে যান