রিয়েল এস্টেট মার্কেট : বাড়ির দাম ও ক্রেতা-বিক্রেতার ভূমিকা

Sun, Oct 8, 2017 6:52 PM

রিয়েল এস্টেট মার্কেট : বাড়ির দাম ও ক্রেতা-বিক্রেতার ভূমিকা

মানিক চন্দ: কিছুদিন আগে এক বন্ধুর বাড়িতে গেলাম একটি ঘরোয়া পার্টিতে বিভিন্ন আলোচনার ফাঁকে উঠে আসলো টরন্টো' বাড়ির দাম প্রসংগে এক বন্ধুর প্রশ্ন : বাড়ির দাম কি আরো কমবে ? প্রশ্নটি আমার উদ্দেশ্যে নয় আমার হোস্ট বন্ধুর উদ্দেশ্যে হোস্ট বন্ধুর পাল্টা প্রশ্ন - আমাকে বলছিস কেন? বিশেষজ্ঞ এখানে থাকতে? প্রশ্নকর্তা বন্ধুটি একটু ক্ষেপে গিয়ে বললো - পাগল নাকি ? হচ্ছে রিয়েল এস্টেট এজেন্ট  ওর কাছ থেকে সঠিক খবর কি করে আসা করছিস? আমার পায়ের রক্ত মাথায় উঠে গিয়েছিল কিন্তু রিয়েল এস্টেট এজেন্টদের নাকি রাগ করতে নেই তাই নিজেকে সামাল দেয়ার অপচেষ্টা করছিলাম পারিনি, তাই রিয়েল এস্টেট মার্কেট নিয়ে একটা ভাষণ দিয়ে দিলাম ভাষণের পর আমার রাগ থামানোর চেষ্টা চলছে আমি খুব মজা পাচ্ছিলাম  এক পর্যায়ে রাগান্নিত বদনখানি অট্টহাসিতে রূপান্তরিত হলো বন্ধুরাতো অবাক এক বন্ধু বলেই উঠলো -কিরে দোস্ত -এটা কি তোর নাটকের মঞ্চ পেয়েছিস ? সারা পৃথিবীটাই যে একটি নাট্য মঞ্চ এটা ওদের কি করে বুঝাই ? তাই সেদিকে না গিয়ে শুধু বললাম যে আমি মোটেই রাগ করিনি  একটু অভিনয় করেছিলাম ভানুর কৌতুকের মতো করে বলমাম- এজেন্ট হইয়া এজেন্টের বদনাম সহ্য করুম না 

আমি জানি আমার বন্ধুটি আমাকে অপমান করার জন্য কথা বলেনি  আমি এও জানি সে যা বলেছে তা মিথ্যা নয় নয়-ছয় বুঝিয়ে একটি বাড়ি ক্রয় বা বিক্রয় করিয়ে দিতে পারলেই পকেটে অনেক টাকা আসবে- ধারণা নিয়ে হয়তো কেউ কেউ অন্যান্য পেশা ছেড়ে দিয়ে পেশায় এসেছেন এবং আসছেন বাড়িটির দাম কত হওয়া উচিত, বাড়িটির শারীরিক অবস্থা কেমন, ক্রয় করার পর আমার ক্রেতা কোন সমস্যার সম্মুখীন হবেন কিনা, ক্রেতা বাড়ির মর্টগেজ চালাতে পারবেন কিনা, কেনার পর নতুন কোনো খরচের বোঝা ক্রেতার মাথায় পড়বে কিনা, আরো কত-শত প্রশ্নের বিশ্লেষণ করার প্রয়োজন আছে আমার বন্ধুটি তার বাড়িটি কেনার সময় একজন এজেন্টের কাছ থেকে এগুলো সম্পর্কে সুপরামর্শ আশা করেছিল  হয়তো সে পায়নি না পেলে কি করে সে এজেন্টদেরকে বিশ্বাস করবে বা তাদের প্রশংসা করবে ? আর সে কারণেই আমি তার উপর রাগ করতে পারিনি এটা আমার দুর্ভাগ্য যে প্রতিনিয়তই  জাতীয় কথা আমাদের শুনতে হয় 

একজন এজেন্টের যোগ্যতা, দক্ষতা, পারদর্শিতা, নীতি, আদর্শ, উদ্দেশ্য, কর্তব্য কি হওয়া উচিত এবং বাস্তবে তার কতটুকু প্রতিফলিত হচ্ছে  ? বিষয়ে অনেক কিছু লিখা যেতে পারে কিন্তু আমার আজকের লিখার উদ্দেশ্য এটা নয়  ভবিষষতে বিষয়ে লিখার ইচ্ছা আছে আজকের লিখার বিষয়বস্তু বাড়ির বর্তমান দাম ক্রেতা-বিক্রেতার ভূমিকা যা সবার মুখে মুখে আজ আলোচিত হচ্ছে তা নিয়ে আমার ব্যক্তিগত কিছু চিন্তা ভাবনার কথা বলতে চাই

প্রত্যেক মানুষের স্বপ্ন থাকে নিজের একটি বাড়ি আর সে স্বপ্ন পূরণের জন্য যা যা প্রয়োজন তা আয়ত্তে আনার জন্য সবাই আপ্রাণ চেষ্টা করে থাকেন  কেউ কেউ একটু অতিরিক্ত ঝুঁকি নিয়ে সে স্বপ্ন পূরণ করেও ফেলেন  কিন্তু একজন মানুষ কতটুক ঝুঁকি নিতে পারে বা নেয়া উচিত ? অনেকেই তা প্রাথমিক পর্যায়ে বুঝতে পারেন না বা বুঝার চেষ্টাও করেন না অথবা কারো কথায়  প্রভাবিত, প্রলোভিত কিংবা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ফলে অনেক সময় আসন্ন ঝুঁকিটি দেখতে পান না তাই  বাড়ি কেনা বা বিক্রয়ের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত  নিতে অনেক সময়ই ভুল হয়ে যায়  আর তখনি সে লালিত স্বপ্নটি দুঃস্বপ্নে রূপান্তরিত হয়  

স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে স্বাধীনতা রক্ষা করা যেমন কঠিন তার চেয়েও কঠিন অর্জিত স্বপ্নকে ধরে রাখা স্বাধীনতা অর্জনের জন্য শুধু হাতিয়ারই একমাত্র ভরসা নয়, তার জন্য প্রয়োজন যুদ্ধ পরিকল্পনা, সময় এবং একজন দক্ষ সেনাপতির রণকৌশল অনুসরণ এবং সর্বোপরি যুদ্ধ পরবর্তী পুনর্বাসনের আগাম প্রস্তুতি তাহলেই সম্ভব কষ্টার্জিত স্বাধীনতাকে সঠিকভাবে উপলব্ধি ভোগ করা বাড়ি কেনাও আমার কাছে এক ধরণের যুদ্ধের মতোই মনে হয় 

গ্রেটার টরন্টোতে বাড়ির দাম বিশেষ করে গত দুবছর ধরে যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছিল তা থামানোর জন্য সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে মূল্য বৃদ্ধির  লাগাম টেনে ধরা চেষ্টা করলেও তা থামানো যাচ্ছিল না  এক গত জানুয়ারি থেকে এপ্রিল  - চার মাসে বাড়ির যে মূল্য বৃদ্ধি ঘটেছে তা বিগত দুবছরের মূল্য বৃদ্ধির রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে পরিংখ্যানে দেখা যায় যে গত তিন বছরে বাড়ির দাম প্রায় দ্বিগুন হয়ে গেছে এপ্রিল মাসে ফেয়ার হাউসিং প্ল্যান ঘোষণার পর রিয়েল এস্টেট মার্কেটে থমথমে ভাব বিরাজ করছে যার ফলে বাড়ির দাম অনেকটা কমেছে কিন্তু এখনো স্বপ্ন পূরণের পর্যায়ে আসেনি ১০% থেকে ১৫% মূল্য কমে যাওয়া মোটেই অস্বাভাবিক নয় এটাও ঠিক বলা যাচ্ছে না যে সরকারের ঘোষিত পদক্ষেপের কারণেই বাড়ির দাম কমে গেছে বা যাচ্ছে মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন বাড়ির অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির লাগাম টেনে ধরার জন্য সরকার কিছু একটা করুক ফেয়ার হাউজিং প্ল্যান ঘোষণার মাধ্যমে যে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা অল্প সংখ্যক  অর্থাৎ % থেকে % ক্রেতা বা বিক্রেতার উদ্দেশ্যে অথচ প্ল্যান ঘোষণার সাথে সাথে ক্রেতাদের শতকরা প্রায় ৮০ জনই মাঠ থেকে ঘরে ফিরে বাজার পরিস্থিতি অবলোকন করছেন বর্তমানে বাড়ির দাম কিছুটা কমলেও তাঁরা মাঠে ফিরছেন না কারণ তাঁদের ধারণা বাড়ির দাম আরো কমতে পারে অপর দিকে বিক্রেতা কম দামে বাড়ি বিক্রি করতে চান না তাই একটি বাড়ি দীর্ঘদিন লিস্টিংএ  থাকছে যাদের একান্ত প্রয়োজন শুধু তাঁরাই বাধ্য হয়ে কিছুটা কম দামে বিক্রি করছেন

যেহেতু চাহিদার চেয়ে যোগান অস্বাভাবিক বেশি সেহেতু দাম কমবে এটাই স্বাভাবিক যদিও ফেয়ার হাউসিং প্ল্যান এর তাৎক্ষণিক প্রভাবে এরকম হয়েছে তবে এটাই একমাত্র কারন নয় আমার মতে এটা ক্ষণস্থায়ী  তবে ফেয়ার হাউসিং প্ল্যান ঘোষণার পদক্ষেপ প্রয়োজন ছিল অন্তত একবৎসর আগে পদক্ষেপ নেয়া হলে আজ হয়তো রিয়েল এস্টেট মার্কেটের অস্বাভাবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হতো না দেরিতে হলেও পদক্ষেপ বাজারে স্থিতিশীলতা রক্ষায় বিরাট ভূমিকা পালন করবে তবে বাড়ির মূল্য স্থিতিশীল রাখতে হলে সরবরাহ বৃদ্ধির জোরালো পদক্ষেপ নেয়া দরকার কেননা বাড়ির দাম নির্ধারিত হয় চাহিদা যোগানের ভিত্তিতে বর্তমানে চাহিদার তুলনায় সরবরাহ খুবই অপ্রতুল তাছাড়া টরন্টো শহরে লোকসংখ্যা তথা বাসস্থানের চাহিদা প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে এমতাবস্থায় সরবরাহ বৃদ্ধি না করলে বাড়ির মূল্য স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসা কঠিন হবে 

অনেকেই ভাবছেন আগামী দুয়েক মাস বা এক দুই বছরের মধ্যে রিয়েল এস্টেট মার্কেটে একটি ধ্বস নেমে আসবে কিন্তু আমি ব্যক্তিগতভাবে তাঁদের সাথে একমত হতে পারছি না তবে বর্তমান অস্বাভাবিক পরিস্থিতির অবসান হতেই পারে যদিও এটা নির্ভর করছে অনেকগুলো উপাদানের যেমন- চাহিদা সরবরাহের ভারসাম্যতা, মানুষের ক্রয় ক্ষমতা, মর্টগেজ পাওয়ার নিশ্চয়তা অন্যান্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের গতি ইত্যাদির উপর  আমি আগেও বলেছি  বাড়ি ক্রয়-বিক্রয়ে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির মধ্যে থাকেন ক্রেতা বাজার যখন বিক্রেতার পক্ষে থাকে তখন ক্রেতার ঝুঁকি আরো অনেক বেড়ে যায়  বাজার অস্থিতিশীল হয়ে উঠে  এতদিন যেটা হয়ে এসছে বিগত দুবছর রিয়েল এস্টেট মার্কেট পুরোটাই বিক্রেতার পক্ষে ছিল  এখন বাজার ক্রেতার পক্ষে আসছে আমি  এটাকে স্বাভাবিক পরিস্থিতির লক্ষণ হিসেবে দেখছি যারা এখন বাড়ি কিনতে চান তাঁদের উদ্দেশ্যে বলবো, বাড়ি কেনা যেহেতু একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেহেতু যেকোন তথ্য বা যে কারো পরামর্শে বিভ্রান্ত না হয়ে একজন অভিজ্ঞ বিশ্বস্ত রিয়েল্টর যিনি ক্রেতার স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে থাকেন তাঁর সাথে পরামর্শ করে সিদ্ধান্ত নেয়াই শ্রেয় সর্বোপরি, রিয়েল এস্টেট মার্কেট স্বাভাবিক গতিতে চলুক, ক্রেতা-বিক্রেতা মধ্যে Win-Win Situation সৃষ্টি হউক এটাই আমাদের কাম্য

লেখক: মানিক চন্দ, রিয়েল এস্টেট ব্রোকার।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
External links are provided for reference purposes. This website is not responsible for the content of externel/internal sites.
উপরে যান