কানাডার রাস্তায় জীবন নিয়ে খামখেয়ালী !

Sun, Oct 8, 2017 7:23 AM

কানাডার রাস্তায় জীবন নিয়ে খামখেয়ালী !

সাইফুল আলম: টরেন্টোতে এই বছরে এ যাবত ৪৯ জনের মত পথযাত্রী মারা গেছে। তবে নিউজ এ কিছুদিন আগে এক পরিবারের ৪ জন রাস্তা পার হতে গিয়ে কিভাবে মারা গেছে তা দেখাচ্ছিল। যতদূর ভিডিওতে দেখলাম তাতে বুঝতে পারলাম, একটা পরিবারের ৪ জন (বাবা, মা, ২ ও ৫ বছরের ছেলে ও মেয়ে)। হয়তো বা সাউথ এশিয়ান হবে, কারন সিল্ভার স্পুন থেকে খাওয়া দাওয়া করে Warden Ave. and Continental Pl. near Ellesmere Rd রাস্তা পার হচ্ছিল, বাবা এবং ২ বছরের ছেলে পার হতে পেরেছে কিন্ত মা এবং ৫ বছরের মেয়ে স্পট ডেড। ইউটিউব এ ভিডিও টা আছে, সচেতনতার জন্য দেখতে পারেন, তবে দুর্বল চিত্তের কেউ হলে দেখা দরকার নাই।

কানাডাতে আসার পর বাংলাদেশে রাস্তা পারাপারের পুরনো অভ্যাস দূরে ঠেলে দিয়েছি, তবুও কখনো কখনো পার হই, তবে আমার সাথে কেউ থাকলে একেবারেই না। প্রায় শুনা যায়, রাস্তা পার হতে গিয়ে অনেকে মারা যাচ্ছে। এদের বেশিরভাগই বয়স্ক অথবা ছোট ছেলে মেয়ে। আবার রাস্তায় চলতে গেলে প্রায় দেখা যায় মানুষ অহরহ রাস্তা পার হচ্ছে। তবে আমি কেন যেন শুধু এশিয়ান এবং যারা সাদা না তাদেরই বেশি দেখতে পাই এই কাজটা করতে। শুনেছিলাম এভাবে রাস্তা পারাপার নাকি অবৈধ। পুলিশ ধরলে ৩০০ ডলার জরিমানা, তবে কেউ ধরা খাইছে বলে শুনিনি। তবে কারো জীবন যে ধরা খাইছে তা শুনেছি এবং দেখেছি।

আমাদের রাস্তা পারাপারের প্রয়োজন হতে পারে, কিন্ত তাই বলে জীবনকে বাজি রেখে। এটাও সত্য যে, আমরা সবাই মারা যাবো, কিন্ত এই অনাকাংখিত মৃত্যু আমরা কেউ আশা করিনা। আপনার সামনে গিয়ে সিগন্যাল যেখানে আছে সেখানে গিয়ে রাস্তা পার হলে হয়তো আপনার একটু সময় যাবে, তবে অনাকাংখিত কোন ঘটনার পরতে হবেনা। যখন ইয়াং ছিলাম (এখনো আমি কিন্ত ইয়াং)। সাইকেল চালিয়ে শহর থেকে বাড়িতে যাইতাম। সাইকেলকে মনে করতাম এ্যাম্বুলেন্স। কিন্ত যখন দেখলাম আমার পরিচিত এক ভাই এক বছরের বাচ্চা এবং বউকে রেখে এক্সিডেন্ট এর কারনে মারা গেল, তখন থেকে সতর্ক, ৫ টন ট্রাক আসতে দেখলে আগে থেকে সরে দারাতাম।

এখন দেখি অনেকেই সিগন্যাল পড়লে আগে পিছে না দেখে রাস্তা পার হয়, মনে করে বাকিটা ড্রাইভার এর দায়িত্ব। কানাডাতে নিয়ম অনেক কড়া, কিন্ত ড্রাইভার এর এক ভুল কিন্ত আপনার জীবন চলে যেতে পারে। তাই সিগন্যাল পড়লেও আপনি আগে পিছে তাকিয়ে তারপর পার হওয়া উচিৎ বলে মনে করি। যদি মনে করেন ড্রাইভার দেখবে তাহলেই কিন্ত কেল্লাফতে। একবার চিন্তা করুন তো, কত চিন্তা ভাবনা, আশা আকাংখা ছিল, ঐ পরিবারের, রেস্টুরেন্ট খেতে এসেছিল, কালকের, সামনে বছরের অনেক প্ল্যান ছিল, সবকিছু ভেস্তে গেল, শুধু একটা ছোট খামখেয়ালীর জন্য। তাই জীবন নিয়ে কোন খামখেয়ালী না এই হোক আমাদের সকলের প্রত্যাশা। সবাই ভালো থাকবেন। ধন্যবাদ।

লেখক: সাইফুল আলম, মনোবিজ্ঞানী এবং সমাজকর্মী


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
External links are provided for reference purposes. This website is not responsible for the content of externel/internal sites.
উপরে যান