কি পরিকল্পনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হত্যাচেষ্টার সংবাদটি ‘বানানো’ হয়েছিলো?

Sun, Sep 24, 2017 7:35 AM

কি পরিকল্পনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হত্যাচেষ্টার সংবাদটি ‘বানানো’ হয়েছিলো?

শওগাত আলী সাগর: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টার খবরটি নাকচ করে দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম  খোকন এক বিবৃতিতে এই খবরকে মিথ্যা এবং উদ্দেশ্যমূলক হিসেবে অভিহিত করেছেন।

খবরটি মিথ্যা হওয়ায় স্বস্তিবোধ করছি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়কে ধন্যবাদ স্বল্পতম সময়ের মধ্যে ঘটনা সম্পর্কে গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে জনসাধারনকে আশ্বস্থ করার জন্য। একটি গনতান্ত্রিক সরকারের কাছে জনগন সব বিষয়েই এমন রেসপন্স আশা করে। সরকার প্রধানের হত্যাচেষ্টা নিয়ে খবর বেরুলে এবং সে ব্যাপারে সরকারের কোনো আনুষ্ঠানিক বক্তব্য না থাকলে মানুষের মধ্যে গুঞ্জন তৈরি হয়, বিভ্রান্তি তৈরি হয়। যারা এই ধরনের খবর তৈরি  এবং প্রচার করে তাদের উদ্দশ্য সফল হয়।

এটা সত্য প্রধানমন্ত্রীর জীবন প্রতি মুহুর্তেই একটি বুলেটের মুখোমুখি, সারাক্ষণই তাকে বুলেট তাড়া করে ফেরে, এই পর্যন্ত অসংখ্যবার তার জীবন নাশের চেষ্টা হয়েছে। ফলে ‘শেখ হাসিনা জীবন নাশের চেষ্টা’- জাতীয় সংবাদগুলো মানুষ সহজেই বিশ্বাস করে ফেলতে চায়। মানুষ আতংকিত হয়।

আলোচ্য সংবাদটিতে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তায় নিয়োজিত সেনাবাহিনীর বিশেষ ইউনিটকে হত্যা চেষ্টায় জড়িয়ে ফেলা হয়েছে। এটা অত্যন্ত বিপদজনক ব্যাপার।এই খবর খোদ প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তায় নিয়োজিত সেনা সদস্যদের মধ্যে পারষ্পরিক অবিশ্বাস, সন্দেহ তৈরি করতে পারে। সেনাবাহিনী সম্পর্কেও জনমনে প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক। ধারনা করা যায়, যারা এই খবরটির জন্ম দিয়েছেন এবং প্রচার করেছেন- তাদের গভীর কোনো ষড়যন্ত্রমূলক পরিকল্পনা নিয়েই কাজটি করেছে।

আরেকটি বিষয়, এই খবরে প্রধানমন্ত্রীর হত্যাচেষ্টাকারীদের সাথে মিয়ানমারের ARSAকেও জড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এই পয়েন্টটা আমার কাছে ইন্টারেস্টিং মনে হয়েছে। ঢাকায় টেলিভিশনের টক শো তে না কি কোনো কোনো বক্তা এই পয়েন্টটা তুলে রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা হুমকি হিসেবে মন্তব্য করেছেন। ঠিক এই কথাটাই ভারত উচ্চকণ্ঠে বলছে শুরু থেকেই। চীন এবং ভারতের রোহিঙ্গা বিরোধী অবস্থান সম্পর্কে আমরা জানি। প্রধানমন্ত্রীর  কল্পিত হত্যা চেষ্টায় রোহিঙ্গাদের বিচ্ছিন্ন একটি সংস্থাকে জড়িয়ে দিয়ে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা বিরোধী সেন্টিমেন্ট তৈরি করার কোনো কূটকৌশল কি এই খবর তৈরির পেছনে কাজ করেছে? বাংলাদেশকেও ভারত- চীনের পাশে রোহিঙ্গা বিরোধী শিবিরে দেখতে চায় কেউ? তাদের হয়েই কি’প্রধানমন্ত্রীর হত্যাচেষ্টার’ খবরের জন্ম দেওয়া?

প্রশ্ন হচ্ছে, বাংলাদেশের মিডিয়া এই খবরটি পূণ:প্রচার করে কোন যুক্তিতে। টিভি চ্যানেলগুলো এ নিয়ে টক শোতে আলোচনাও বা করে কি ভাবে? ঘটনা যেহেতু বাংলাদেশের- তাদের তো উচিত ছিলো প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এই ব্যাপারে তথ্য জেনে নেওয়া । এমন একটি স্পর্শকাতর বিষয়কে টক শোর উপাদান বানানোর আগে অবশ্যই বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নেওয়া দরকার ছিলো। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে খবরটি উড়িয়ে দেওয়ার পর টক শোর আলোচনাগুলো কি অসার হয়ে গেলো না?

নতুনদেশ এর প্রধান সম্পাদক


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
External links are provided for reference purposes. This website is not responsible for the content of externel/internal sites.
উপরে যান