লকডাউন ধনীদের কাজ করেছে, গরিবদের জন্য নয়!

Mon, Aug 3, 2020 5:41 PM

লকডাউন ধনীদের কাজ করেছে, গরিবদের জন্য নয়!

নতুনদেশ ডটকম: করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশে দেশে যে লকডাউনের ঘোষনা দেয়া হয়েছে- সেটি কি সত্যিই সত্যিই কাজ করেছে? কতোটা করেছে?  প্রশ্নটা তুলেছে কানাডার প্রভাবশালী পত্রিকা টরন্টে স্টার। ‘লক ডাউন আসলে ধনীদের জন্য উপকারী হলেও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য সহায়ক হিসেবে কাজ করেনি, করোনা ভাইরাস মোকাবেলার ক্ষেত্রেও না।’- সরকারি তথ্যউপাত্ত বিশ্লেষন করেই এমন একটি বক্তব্য নিয়ে হাজির হয়েছে পত্রিকাটি।

জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া টরন্টোর ১৫,৩০০ জন  নাগরিকের বিস্তারিত তথ্য উপাত্ত প্রকাশ করেছে টরন্টো পাবলিক হেলথ। এই তথ্যে আক্রান্ত প্রতিটি ব্যক্তির বয়স, অর্থনৈতিক অবস্থা, কবে আক্রান্ত হয়েছে, কিভাবে আক্রান্ত হয়েছে, কোন এলাকায় বসবাস করেন- এইসব তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। টরন্টো পাবলিক হেলথের এই তালিকাটি ধরেই গবেষনা করে টরন্টো স্টার।

তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষন করে টরন্টো স্টার দাবি করেছে, লকডাউনের ঘোষনার প্রায় সঙ্গে সঙেগই টরন্টোর ২০ নেইবারহুডে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রায় নিয়ন্ত্রিত হয়ে যায়। ২০টি এলাকার বাসিন্দাদের ব্যক্তিগত তথ্যউপাত্ত বিশ্লেষণ করে পত্রিকাটি দেখতে পায়- ২০১৬ সালের আদম শুমারী হিসেবে এই এলাকাগুলোয় অপেক্ষাকৃত স্বচ্ছল এবং সাদাদের বসবাস। লক ডাউন সত্ত্বেও বাদবাকি যে এলাকাগুলোতে করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঘটেছে- সেই এলাকাগুলোয় মূলত অভিবাসী এবং আর্থিকভাবে টানাপড়েনে থাকা নাগরিকদের বসবাস।

পাবলিক হেলথের তথ্য বিশ্লেষন করে দেখা যায়, ২০টি নেইবারহুডের অধিবাসীদের সিংহভাগই এমন ধরনের পেশায় নিয়োজিত যে গুলো ঘরে বসেই করা যায়। ফলে লক ডাউন বা জরুরী নয়- এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিস বন্ধ ঘোষনা করা হলেও তারা বাড়ীতে থেকে কাজ করতে পেরেছেন এবং চাকুরী নিয়ে চিন্তা করতে হয়নি। কিন্তু অভিবাসীদের সিংহভাগই এমন ধরনের পেশায় নিয়োজিত যে গুলো বাড়ীতে থেকে করা যায় না। ফলে তাদের অনেকেই চাকুরী হারিয়েছেন, অনেকেই গ্রোসারী,গণপরিবহণ বা অন্যান্য জরুরী সেবামূলক কাজে নিয়োজিত থেকেছেন বিধায় তাদের প্রতিদিনই কর্মস্থলে যেতে আসতে হয়েছে। এভাবে তারা নিজেরাও ভাইরাস ছড়িয়ে দিয়েছেন্। বিশ্লেষনে দেখা যাচ্ছে, অর্থনৈতিকভাবে অসচ্ছল পরিবারের সদস্যরা লকডাউনে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন, আবার ভাইরাসেও সংক্রমিত হয়েছেন।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান