ট্রাম্প পুটিনের পাপেট: হিলারি

Thu, Feb 27, 2020 10:29 AM

ট্রাম্প পুটিনের পাপেট: হিলারি

শিতাংশু গুহ:  ডেমোক্রেট শিবিরে সবার নজর এখন ‘সুপার টুইসডে’ প্রাইমারীর দিকে, সেটি ৩রা মার্চ ২০২০। প্রেসিডেন্ট প্রার্থিতা মোটামুটি সেদিন থেকে স্পষ্ট হতে শুরু করবে। বার্নি স্যান্ডার্স এখন ফ্রন্টরানার, তার পেছনে আছেন জো বাইডেন। ডেমক্রেট নেতৃত্বের পছন্দ বাইডেন, কিন্তু তরুন নেতৃত্ব চায় স্যান্ডার্সকে। সেই হিসাবে তিনি অনেকটা ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী না হলেও পছন্দের প্রার্থী নন। যুক্তরাষ্ট্রে এখনো কোন ইহুদী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হননি। তার স্বাস্থ্য নিয়ে সংশয় আছে। তাকে সমাজতান্ত্রিক প্রার্থীও বলা হচ্ছে। তিনি ডেমোক্রেট প্রার্থী হলে ট্রাম্প সহজে জয়ী হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেই দিক থেকে সুপার টুইসডে-তে বাইডেনের এগিয়ে আসার সম্ভবনা আছে। বাইডেন মরিয়া হয়ে তাঁর সাবেক বস প্রেসিডেন্ট ওবামা-কে ফলো করে আক্রমণাত্মক ভূমিকা নিচ্ছেন এবং তা কিছুটা সফল হচ্ছেন। অল্টারনেট প্রার্থী হিসাবে মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ আছেন।

 

২০১৬-তে বার্নি স্যান্ডার্স প্রথম দিকে বেশ ভালো করেছিলেন। অনেকটা পার্টি বস-দের তোড়জোড় এবং  ডেমক্রেট পার্টির আনুকূল্যে হিলারী ক্লিন্টন দলীয় মনোনয়ন পান। এবারো ডেমক্রেট শিবিরে নিয়মতান্ত্রিক ‘অভ্যুত্থান’ ঘটার সম্ভবনা আছে? জর্জিয়ার রিপাবলিকান সিনেটর ডেভিড পারডিউ বলেছেন, বার্নি স্যান্ডার্স ‘রিপাবলিকানদের জন্যে একটি উপহার’, তিনি প্রার্থী হলে কংগ্রেস রিপাবলিকানদের দখলে চলে আসবে। তবে সদ্য নেভাদা প্রাইমারীতে বার্নি স্যান্ডার্স বেশ ভালোভাবে জিতেছেন, ভোট পেয়েছেন ৪৬.৮%। জো বাইডেন এগিয়ে এসেছেন, ২০.২% ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন। তৃতীয় পিট্ বুটিগেগ, এবং চর্তুর্থ এলিজাবেথ ওয়ারেন। গতকাল মঙ্গলবার ডেমক্রেট বিতর্কে ৭জন প্রার্থী হৈচৈ করে নিজেদের এগিয়ে নিতে চেষ্টা করেছেন। স্যান্ডার্স ভালো করেছেন। ব্লুমবার্গ মোটামুটি।

 

সদ্য নেয়া সিবিএস নিউজ/ইউগভ জরিপ বলেছে, ডেমোক্রেট অধ্যুষিত এলাকায় ৬৫% ভোটার মনে করেন ট্রাম্প জিতবেন। ৩১% বলছেন, নিশ্চিত জিতবেন; ৩৪% বলেছেন, সম্ভবত: জিতবেন। জরিপ আরো বলেছে, ১২% মনে করেন ট্রাম্প জিতবেন না; ২৩% বলছেন জেতার সম্ভবনা কম। ৯০% রিপাবলিকান বলেছেন, ট্রাম্প জিতবেন। এমনকি ৩৩% ডেমক্রেট বলছেন, হয়তো জিতবেন। বার্নি স্যান্ডার্স ভোটারদের আশ্বাস দিচ্ছেন যে, তার স্বাস্থ্য ভালো আছে, তবে তিনি তাঁর স্বাস্থ্যরেকর্ড প্রকাশ করছেন না! ট্রাম্প যেমন তার ট্যাক্স রেকর্ড প্রকাশ করছেন না, বার্নি স্যান্ডার্স তেমনি তাঁর স্বাস্থ্য রেকর্ড গোপন রাখছেন। করোনা ভাইরাসের জন্যে নিউইয়র্কে স্টকমার্কেটে ধ্বস নেমেছে, জল্পনা হচ্ছে, এতে কি ট্রাম্পের ক্ষতি হবে? ভারত সফর শেষে ট্রাম্প আমেরিকায় ফিরে এসে বলেছেন, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।

 

সিনিয়র ইন্টিলিজেন্স কর্মকর্তারা বলেছেন, রাশিয়া এবারো প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করতে চাচ্ছে, তাদের লক্ষ্য ট্রাম্পকে ক্ষমতায় রাখা। এ সংবাদে ট্রাম্প বেজায় চটেছেন। অন্য খবরে বলা হয়েছে, রাশিয়া বার্নি স্যান্ডার্স’র পক্ষে কাজ করছেন। ইন্টিলিজেন্স কর্মকর্তারা বার্নি স্যান্ডার্সকে জানিয়েছেন যে, রাশিয়া তাঁর সমর্থনে হস্তক্ষেপ করতে উদ্যত। বার্নি বলেছেন, ‘আই ডোন্ট কেয়ার’। পুটিনকে তিনি বলেছেন, মার্কিন নির্বাচন থেকে ‘দূর রহো’। হিলারি ক্লিন্টন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ‘পুটিনের পাপেট’ বলে মন্তব্য করে বলেছেন, রাশিয়ার সাহায্য ছাড়া ট্রাম্প জিততে পারবে না’? ট্রাম্প এক টুইটে মাইক ব্লুম্বার্গকে ‘মিনি মাইক’ হিসাবে বর্ণনা করে লিখেছেন, ব্লুমবার্গের প্রথম বিতর্ক যাচ্ছেতাই, এমন খারাপ অবস্থা জীবনে দেখিনি। কারো কারো মতে, ট্রাম্পকে একজন ধনী পরাজিত করতে পারবেন তাই কোন কোন ডেমক্রেট বুলুমবার্গকে সমর্থন করছেন।

 # guhasb@gmail.com;


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান