কানাডা আওয়ামী লীগের তিন রত্ন

Sat, Jun 16, 2018 10:38 AM

কানাডা আওয়ামী লীগের তিন রত্ন

সোহেল শাহরিয়ার:কানাডা আওয়ামী লীগের তিন রত্ন !!! কেন বললাম তিন রত্ন ? প্রথমে পরিচয় করিয়ে দেই কানাডা আওয়ামী লীগের তিন রত্ন নেতাদের ,বাম পাশ থেকে প্রথম কানাডা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সভাপতি গোলাম মাহমুদ মিয়া ,সহ -সভাপতি ইঞ্জি: সৈয়দ আব্দুল গফ্ফার , আর আমাদের প্রিয় সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান প্রিন্স ভাই !!!

আসা যাক মূল কোথায় ,আমি ২০১১ তে আসার পর আপা মোট তিন বার এসেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে ,প্রথমবার আমি কানাডা আওয়ামী রাজনীতির সাথে ছিলাম না তাই তাদেরকে ভাল মত চেনা বা জানার উপায় ছিল না। আমার রাজনৈতিক বড় ভাই বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক ভাই, আমরা একসাথে ওয়ান এলিভেন এ জেলে ছিলাম দীর্ঘদিন। তারই হাত ধরে টরন্টো সিটিতে রাজীনীতিতে আসা।তার ছোট ভাই মাসুদ আলী লিটন তৎকালীন সময় এ কানাডা আওয়ামী লীগ কর্তৃক অনুমোদিত টরন্টো সিটি আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিল। অসাধারণ ব্যক্তিত্বের অধিকারী মাসুদ আলী লিটন। সে আমাকে সিটি আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দেয়। তারপর থেকে কানাডা আওয়ামী রাজনীতির সাথে পথ চলা।আস্তে আস্তে সবার সাথে উঠা বসা সবার সাথে পরিচয় সবার সাথে মেলামেশা করতে করতে প্রায় নয় বছর কেটে গেল।

হয়ত অনেকে এই লিখাটা পরে রসিকতা করে বলবেন, আমি তাদের তেল দিচ্ছি, আমাকে যারা চেনেন তারা জানেন আমি মোটেও তেল পছন্দ করি না। সেই ২০১১ থেকে দেখা এই কানাডা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে অন্যায় ভাবে কতটা নাজেহাল করা হয়েছে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে তাদের অপমানিত করা হয়েছে।একই সাথে বসে একই সাথে খেয়ে কিভাবে একটামানুষ একটা মানুষকে অন্যায় ভাবে আজেবাজে কথা বলতে পারে তা এইখানে আওয়ামী রাজনীতির সাথে না থাকলে বুঝা যাবে না!

 এই তিনটি মানুষ একই চিন্তা চেতনার না হলেও সবসময় তারা একই সাথে পথ চলেছেন,কখনও রাগ কখনো অভিমান কখনো কান্না সবকিছু নিয়ে তারা কাঁধেকাঁধ রেখে পথ চলেছেন। তাদের পরিবারেরকেও নাজেহাল করা হয়েছে,হয়েছে তাদের কর্মস্থল, রাস্তা আড্ডা সবজায়গাতে নাজেহাল। কানাডাতে আওয়ামী লীগকে ভালবাসে অনেক মানুষ আছেন দীর্ঘদিন ধরে থাকেন কিন্তু এই ধরনের অবস্থার জন্যে আসা তো দূরের কথা অনেকেই কাছে আসতে চান না। বিরোধী তো থাকবেই, মাঠের রাজনীতিতে প্রতিপক্ষ থাকবে না -  তাহলে সেই রাজীনীতিতে মজা ও থাকে না। কিন্তু তাই বলে এইভাবে? না আছে কোন সাংগঠনিক জ্ঞান না আছে সম্মানবোধ।আমার তো মনে হয় তারা কখনো আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র ও পড়ে দেখেনি। এমন কি দেশরত্ন শেখ হাসিনার দেয়া কমিটি ও তারা মানতে নারাজ। অনেক ভাবে চেষ্টা করা হয়েছে এই কমিটি বাতিল করার জন্যে। যেখানে যা প্রয়োজন তাই করা হয়েছে। কখনো কানাডা আওয়ামী লীগকে স্মশানের ঘাটের সাথে তুলনা করা হয়েছে,কখনও বিএনপি, কখনও জামাত,কখনও মোস্তাক,কখনও প্রবাসী ব্যাবসায়ী, আবার কখনও চাঁদাবাজ ও বলা হয়েছে। জ্ঞানহীন ভাবে বলা হয়েছে কমিটি পোস্ট বিক্রি করে টাকা নিয়েছে। এমনকি এই তিন রত্ন এর পরিবারের সকল কে তারা নাজেহাল করতে ছাড়েনি। অথচ এই কানাডাতে ছাত্রলীগের অনেক বাঘা বাঘা নেতাও আছে , মজার ব্যাপার হচ্ছে তারাও তাদের সাথে কিভাবে যে গায়ের সাথে গাঁ মিলিয়ে এই উদ্ভট কথা বলা শুরু করলো আল্লাহ তা ভাল জানেন।|

তারপরও কোন প্রকার হাল ছাড়েনি আমাদের দেশরত্ন শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড খ্যাত এই তিন রত্ন। সকালে বিকালে রাতে যখন যা যেভাবে প্রয়োজন সে ভাবেই তারা তাদের কর্ম সম্পাদন করেছে ,কিন্তু বিনিময়ে পেয়েছেন অনেক অনেক গালা গাল। কিন্তু তারপরেও তারা থেমে থাকেননি। পর পর তিনটি প্রোগ্রাম তারা করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর, যাদের চোখ আছে তারা দেখেছেন কতবড় অনুষ্ঠান করা হয়েছে। আর তা সম্ভব হয়েছে দেশরত্ন শেখ হাসিনার শক্তিশালী হাতিয়ার এই কানাডা আওয়ামী লীগের এই তিন রত্নের জন্যে।  দেশরত্ন শেখ হাসিনা খুব ভালমতোই তার তিনজন সিপাহীসালার বেছে নিয়েছেন। অনেক ঝড় অনেক হুঙ্কার অনেক রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে তারা তিন জন এগিয়ে গিয়েছেন এবং ভবিষৎতে ও এগিয়ে যাবেন ,দেশরত্ন শেখ হাসিনা তার নিবেদিত কর্মীদের মন বুঝেন আর তাই এবার এসেও তাঁর এই বিশ্বস্ত তিন রত্নকে এগিয়ে যেতে বলেছেন। করে দিয়েছেন তাদেরকে জয়ী। সবার সব অভিযোগ অনুযোগকে না পাত্তা দিয়ে তাদের পাশে দাঁড়িয়ে একজন বলিষ্ঠ নেতার মত বিরোধীদের তিরস্কার করেছেন। এত দিনের সকল মিথ্যাচারের জবাব পেয়েছেন।

দেশরত্ন শেখ হাসিনা তার কর্মীদের পাশে সবসময় ছিলেন আছেন থাকবেন !! পরিশেষে আমাদের এই তিন রত্নকে মুজিবীয় শুভেচ্ছা, আপনারা এগিয়ে যান, কানাডা আওয়ামী লীগকে আরো অনেক শক্তিশালী করুন ,দেশরত্ন শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত কর্মী হয়ে কানাডা আওয়ামী লীগের রত্ন হিসেবে আপনারদের নেতা কর্মীদের আরও শক্তিশালী করুন !!

অনেক ভাল থাকুন কানাডা আওয়ামী লীগের তিন রত্ন !!

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সোহেল শাহরিয়ারের ফেসবুক পোষ্ট


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান